একনজরে দেখেনিন এবারের টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপে বল হাতে শীর্ষে আছেন যারা

অস্ট্রেলিয়া প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জিতে ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শেষ করেছে। নিউজিল্যান্ড আবারও শোচনীয়। প্রথমবারের মতো, আজিরা ঘরে বসে ক্রিকেটের একটি সংক্ষিপ্ত সংস্করণ সম্পন্ন করে এবং শিরোনাম ক্যাবিনেটে ১৬টি শিরোপা জিতেছে। এবারের বিশ্বকাপে সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হওয়া ডেভিড ওয়ার্নার অজিতের বিশ্বজয়ের নায়ক হিসেবে উল্লেখ করা যেতে পারে আরেকটি নাম।

বল হাতে ঘূর্ণি জাদুতে কুপোকাত করেছেন প্রতিপক্ষকে। বলা হচ্ছিল অ্যাডাম জাম্পার কথা। তবে দুর্দান্ত পারফর্ম করেও সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হতে পারেননি। থামতে হয়েছে দুইয়ে থেকেই। সংযুক্ত আরব আমিরাতের উইকেটে এবার দেখা মিলেছে স্পিনারদের দাপট। তাই তো সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকার সেরা পাঁচে আছেন তিন স্পিনার।

এক নজরে দেখে নেওয়া যাক এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকা—

১. ওয়াইনিন্দু হাসারাঙ্গা: সর্বোচ্চ উইকেট নিয়ে শীর্ষে থেকে টুর্নামেন্ট শেষ করেছেন শ্রীলংকার ওয়াইনিন্দু হাসারাঙ্গা। গোটা টুর্নামেন্টে বাছাইপর্ব এবং সুপার টুয়েলভের পাঁচ ম্যাচসহ মোট আট ম্যাচে ৩০ ওভার বল করে ১৬টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। মাত্র ৫.২০ ইকোনমি রেটে বল করা হাসারাঙ্গার সেরা বোলিং ফিগার ৯ রানে ৩ উইকেট।

২. অ্যাডাম জাম্পা: বল হাতে এবারের বিশ্বকাপে ছড়ি ঘুরিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও তিনিই। সেমিফাইনালসহ ছয় ম্যাচে ২৩ ওভার বল করে ১২টি উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। এরপর ফাইনালে একটি উইকেট। সবমিলিয়ে বিশ্বকাপে তার উইকেট সংখ্যা ১৩টি। জাম্পা এবারের টুর্নামেন্টে ৫.৮১ ইকোনমি রেটে বল করেছেন। ১৯ রানে ৫ উইকেট সেরা বোলিং ফিগার তার।

৩. ট্রেন্ট বোল্ট: সেমিফাইনালসহ মোট ছয় ম্যাচ খেলে ১১ উইকেট পেয়েছিলেন ট্রেন্ট বোল্ট। ফাইনালে সতীর্থরা যখন বল হাতে নাকানিচুবানি খাচ্ছিল তখনও নিজের কাজটা ঠিকই করেছেন বোল্ট। ৪ ওভারে মাত্র ১৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ২টি উইকেট। অজি ব্যাটারদের জন্য কাজটা কঠিনই করে তুলেছিলেন বোল্ট তবে শেষ পর্যন্ত আর পের ওঠেননি।

টুর্নামেন্ট শেষ করতে হয়েছে অ্যাডাম জাম্পার সঙ্গে সমান ১৩টি উইকেট নিয়ে যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকার হিসেবে। ৬.২৫—বোঝার সাধ্যি কার এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বোল্টের ইকোনমি এটি। ভারত ও আফগানিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের মহাগুরুত্বপূর্ণ দুই ম্যাচে ৩টি

করে উইকেট নিয়েছেন বোল্ট। সেমিফাইনালে যদিও তেমন কিছুই করতে পারেননি তিনি। বোল্টের সেরা বোলিং ফিগার ১৭ রানে ৩ উইকেট।

৪. সাকিব আল হাসান: চোটের কারণে সুপার টুয়েলভের শেষ দুটি ম্যাচ খেলতে পারেননি সাকিব আল হাসান। তবুও আছেন বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকায় যৌথভাবে তিনে। গোটা দলের পারফরম্যান্স বাজে হলেও নিজের দিকের কাজটা করে গেছেন সাকিব। টুর্নামেন্ট জুড়ে ছয় ম্যাচে ২২ ওচার বল করে ১১টি উইকেট নিয়েছেন সাকিব। সেরা বোলিং ফিগার ৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট। এবারের বিশ্বকাপে বল করেছেন ৫.৫৯ ইকোনমি রেটে।

৫. জশ হ্যাজেলউড: বল হাতে গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে গতির ঝড় তুলেছেন জশ হ্যাজেলউড। বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকায় যৌথভাবে তিনে আছেন জশ হ্যাজেলউড। সুপার টুয়েলভের পাঁচ, এরপর সেমিফাইনাল ও ফাইনাল মিলিয়ে হ্যাজেলউডের উইকেট সংখ্যা ৭ ম্যাচে ১১টি। এতেই সাকিব আল হাসানের সঙ্গে যৌথভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিদের তালিকায় তিনে উঠে এসেছেন তিনি। এই সাত ম্যাচে ২৪ ওভারে ১৭৫ রান দিয়ে ১১ উইকেট নিয়েছেন হ্যাজলউড। ৭.২৯ ইকোনোমি রেটে বল করা হ্যাজলউডের সেরা বোলিং ফিগার ৩৯ রানে ৪ উইকেট।

এছাড়া এই তালিকায় চারে আছেন ডুয়াইন প্রিটোরিয়াস। সুপার টুয়েলভের পাঁচ ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ৯টি। তার সমান ৯টি উইকেট নিয়েছেন সতীর্থ অ্যানরিখ নর্টিয়ে। এছাড়া ৯টি করে উইকেট আরও নিয়েছেন স্কটল্যান্ডের জশুয়া হেনরি ড্যাভি, পাকিস্তানের শাদাব খান, ইংল্যান্ডের আদিল রশিদ, নামিবিয়ার জেমস ফ্রাইলিং, নিউজিল্যান্ডের ইস সোধি, অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক। বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপে আটটি করে উইকেট শিকারি আছেন ১১জন বোলার। যার মধ্যে আছেন বাংলাদেশের মাহেদি হাসান এবং মোস্তাফিজুর রহমান।

সংশ্লিষ্ট খবর