ডি ককের সর্বোচ্চ রানের রেকর্ডে উইন্ডিজদের বিপক্ষে প্রোটিয়াদের সিরিজ জয়

২-২ সমতার পর শনিবার রাতে সিরিজ নির্ধারণী পঞ্চম ও শেষ ম্যাচে ক্যারিবীয়দের ২৫ রানে হারিয়ে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা। পুরো সিরিজে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি ককের অনবদ্য পারফর্মম্যান্সে ২ বছর পর সিরিজ জিতল প্রোটিয়ারা। তারা সবশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছিল ২০১৯ সালের মার্চে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

মাঝের দুই বছরেরও বেশি সময়ে ৬টি সিরিজে তারা হেরেছে। একটি সিরিজ ড্র হয়। মার্ক বাউচারের কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেওয়া ও তেম্বা বাভুমার সাদা বলে অধিনায়ক হওয়ার পর প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ পেল প্রোটিয়ারা। ক্যারিবীয় সফর থেকে যারা টেস্ট ও টি-টোয়েন্ট দুই সিরিজের ট্রফি নিয়েই ফিরছে।

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশের স্বাদ দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজটা বেশ জমে উঠে। প্রথম ম্যাচ উইন্ডিজ জিতলেও পরের দুই ম্যাচে জিতে সিরিজে এগিয়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। চতুর্থ ম্যাচ জিতে সিরিজে ফিরে উইন্ডিজ। তবে পারল না শেষে এসে।

গ্রেনাডায় এদিন প্রোটিয়াদের জয়ের পথ তৈরি করে দিয়েছিলেন আইডেন মারকরাম ও কুইন্টন ডি কক। প্রথম ওভারেই দলীয় রানের খাতা খোলার আগেই বাভুমা (০) বিদায় নেন। কিন্তু দ্বিতীয় উইকেটে মারকরাম ও ডি কক ঝড় তোলেন। ১২৮ রান যোগ করেন দুজন।

৪৮ বলে ৩ চার ও ৪ ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ ৭০ রান করেন মারকরাম। ডি কক ৪২ বলে ৬০ রান করেন ৪ চার ও ২ছক্কায়। সুবাদে ৪ উইকেটে ১৬৮ রানের পুঁজি পায় অতিথিরা।

এই ইনিংসের পথে এদিন টি-টোয়েন্টিতে এক সিরিজে উইকেটরক্ষক হিসেবে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েন ডি কক। পাঁচ ম্যাচে তিন ফিফটিতে ডি কক করেন ২২৫ রান। যা এক সিরিজে সর্বোচ্চ। এর আগে ২০২০ সালে এক সিরিজে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছিলেন ভারতের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান লোকেশ রাহুল।

১৬৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৯ উইকেটে ১৪৩ রানের বেশি করতে পারেনি উইন্ডিজ। যদিও ইভিন লুইস ৩৪ বলে ৫২, সিমরন হেটমায়ার ৩১ বলে ৩৩, নিকোলস পুরান ১৪ বলে ২০ রান করেন। আসলে কার্যকরী জুটি গড়তে পারেনি দলটি। যে কৃতিত্ব প্রোটিয়া বোলারদের।

তাবরাইজ শামসি যেমন ১ উইকেট পেলেও ৪ ওভার বল করে মাত্র ১১ রান খরচ করেন। দারুণ বল করেন কাগিসো রাবাদা ও উইয়ান ‍মুল্ডার। দুজনই পেয়েছেন দুটি করে উইকেট। সর্বাধিক ৩ উইকেট নেন লুঙ্গি এনগিদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ
দক্ষিণ আফ্রিকা ১৬৮/৪(২০)
মার্করাম ৭০, ডি কক ৬০
এডওয়ার্ডস ২/১৯, ব্রাভো ১/২৮
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৪৩/৯(২০)
লুইস ৫২, হেটমায়ার ৩৩
এনগিদি ৩/৩২, রাবাদা ২/২৪
ফলাফলঃ দক্ষিণ আফ্রিকা ২৫ রানে জয়ী।
ম্যাচসেরাঃ এইডেন মার্করাম।
সিরিজ সেরাঃ তাবরাইজ শামসি।

You May Also Like

About the Author: