৫ ছক্কা ২ চার ২০৪ স্ট্রাইকরেটে ব্যাটিং করে দক্ষিণ আফ্রিকাকে কাঁদিয়ে রান পাহাড় পোলার্ডের

ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালালেন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুর্দান্ত ইনিংস খেলে সিরিজের শেষ ম্যাচকে ফাইনালের আমেজ এনে দিয়েছেন এই ব্যাটসম্যান।

সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৫ ম্যাচ টি-২০ সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে গ্রানাডায় মুখোমুখি হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এদিন প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে ওপেনার লেন্ডল সিমন্সকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পড়েননি টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা।

এভিন লুইস, ক্রিস গেইল ও শিমরন হেটমেয়াররা যখন নিজেদের রান দুই অঙ্কের ঘরে নেয়ার আগেই সাজঘরে ফিরে যায় তখন সিমন্সের সাথে ছোট জুটি গড়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেছিলেন নিকোলাস পুরান। দলীয় ৭০ ও ব্যক্তিগত ৪৭ রানে সিমন্স সাজঘরে ফিরে যাবার পর ১৫ বল মোকাবেলায় ১৬ রান করে পুরান দলীয় ৮৯ রানে যখন সাজঘরে ফিরেন তখন ক্রিজে আসেন অধিনায়ক কাইরন পোলার্ড।

প্রোটিয়া বোলারদের উপর স্ট্রিমরোলার চালিয়ে এদিন একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন ক্যারিবিয়ান অধিনায়ক। মাত্র ২৫ বল মোকাবেলায় পোলার্ডের ব্যাট থেকে আসে অপরাজিত ৫১ রানের ইনিংস। ২০৪ স্ট্রাইকরেটে ব্যাটিং করা পোলার্ডের ইনিংসে ছিল ৫টি ছক্কা ও ২টি চার।

পোলার্ডের এই ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ভর করে নির্ধারত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৭ রান সংগ্রহ করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

জবাবে খেলতে নেমে অবশ্য শুরু থেকেই ধারাবাহিক বিরতিতে উইকেট বিলাতে থাকে সফরকারী প্রোটিয়া দল। একা হাতে অবশ্য চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছিলেন কুইন্টন ডি কক। তবে এই ওপেনার ৪৩ বলে ৬২ রান করলেও বাকি ব্যাটসম্যানরা ছিলেন আসা-যাওয়ার মিছিলে।

দলের সাতজন ব্যাটসম্যান নিজেদের রান দুই অঙ্কের ঘরে নেয়ার আগেই প্যাভিলিয়নে ফিরলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে প্রোটিয়াদের ইনিংস থামে ১৪৬ রানে। ফলে তারা ম্যাচটি হেরে যায় ২১ রানের ব্যবধানে।

উল্লেখ্য, ৫ ম্যাচ টি-২০ সিরিজে এখন ২-২ সমতা বিরাজ করছে। আগামী ৪ জুলাই দুই দলের মধ্যকার শেষ টি-২০ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। যা হবে সিরিজ নির্ধারনী ম্যাচ।

You May Also Like

About the Author: