যেকারনে ফাইনালের শেষ দিন বাথরুমে লুকিয়ে ছিলেন জেমিসন

পর পর দুইবার ২০১৫ এবং ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে তীরে এসে তরি ডুবেছিল নিউজিল্যান্ডের। কিন্তু এইবার সেই অক্ষেপ ঘুচিয়ে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে শেষ হাসিটা হেসেছে কেন উইলিয়ামসনের দলই। ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত টেস্টের সেরা হওয়ার দৌড়ে ৮ উইকেটে জয় পেয়ে শিরোপা জেতে নিউজিল্যান্ড।

ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের জয়ের পেছনে বড় অবদান ছিল কাইল জেমিয়েসনের। ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি লম্বা এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাউদ্যাম্পটনে প্রথম ইনিংস নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে তার শিকার ২ উইকেট।

দুই ইনিংসেই জেমিসন সাজঘরে ফিরিয়েছেন বিরাট কোহলি। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের প্রথম শিরোপা ঘরে তোলার ম্যাচে ম্যাচ সেরাও নির্বাচিত হয়েছেন এই পেসার। কিন্তু ম্যাচ চলাকালীন স্নায়ুচাপ ধরে রাখতে না পেরে বাথরুমে লুকিয়ে ছিলেন তিনি।

Advertisements

১৩৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতে ২ উইকেট হারিয়ে বসে নিউজিল্যান্ড। কিন্তু দুই অভিজ্ঞ রস টেলর এবং কেন উইলিয়ামসনের ব্যাটে জয়ের বন্দরে পৌছায় তারা। আর দ্বিতীয় ইনিংসে নিউজিল্যান্ড যত জয়ের কাছে যাচ্ছিল ততই নাকি স্নায়ুচাপ ধরে রাখতে কষ্ট হচ্ছিল জেমিসনের।

Advertisements

জেমিসন বলেন, ‘আমার খেলা ক্রিকেট ম্যাচগুলোর মধ্যে অন্যতম কঠিন মুহূর্ত ছিল এটি। আমরা ভেতরে বসে ছিলাম, টেলিভিশন দেখছিলাম। প্রতি বলেই মনে হচ্ছিল এই বুঝি আউট। কারণ ভারতের দর্শকরা যেভাবে উল্লাস করছিল বা হইহুল্লোড় করছিল।’

‘মুহূর্তগুলো অনেক কঠিনভাবে কেটেছে। আমি স্নায়ুচাপ ধরে রাখতে পারছিল না, বেশ কয়েকবার বাথরুমেও গিয়ে বসেছিলাম। যেখানে কেউ ছিল না, কোন আওয়াজ ছিল না। একদম নিশচুপ, যেন নিজেকে শান্ত রাখতে পারি। কিন্তু তারপরও আশা ছিল কেন এবং রস খেলছে, বিশ্বাস ছিল অভিজ্ঞরাই ম্যাচ শেষ করে আসবে। তারা সেটাই করেছে।’ যোগ করেন জেমিসন। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে এই মুহূর্তে ইংল্যান্ডেই অবস্থান করছেন জেমিসন। খেলছেন ইংল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে সারের হয়ে। যদিও ২ ম্যাচে এখন পর্যন্ত কোন উইকেট পাননি এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার।

Related Post