জিম্বাবুয়ে সিরিজ নিয়ে গোপন তথ্য ফাঁস করে দিলেন হাবিবুল বাসার!

এ মাসের শেষদিকে জিম্বাবুয়ে সফরে যাবে বাংলাদেশ দল। জিম্বাবুয়ের মাটিতে স্বাগতিকদের বিপক্ষে টাইগাররা খেলবে একটি টেস্ট এবং তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি। দ্বিপাক্ষিক এই লড়াই শুরু হবে টেস্ট সিরিজ দিয়ে।

তবে টেস্ট দিয়ে খেলা মাঠে গড়ানোর আগে প্রশ্ন উঠছে বাংলাদেশের প্রস্তুতি নিয়ে। বাংলাদেশ সর্বশেষ টেস্ট খেলেছে গত মার্চ-এপ্রিলে, শ্রীলঙ্কার মাটিতে। জিম্বাবুয়ের কন্ডিশনে বাংলাদেশ অভ্যস্ত নয়। তার চেয়েও বড় কথা, বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা টেস্ট থেকে দূরে সেই শ্রীলঙ্কা সিরিজের পর থেকেই।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে লঙ্কানদের বিপক্ষে। এরপর শুরু হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল), যা এখনও চলছে। ডিপিএল শেষ হওয়ার সাথে সাথেই টেস্ট দল ধরবে জিম্বাবুয়ের বিমান

তাই টি-টোয়েন্টির অভ্যস্ততা থেকে টেস্ট খেলা কতটা যৌক্তিক হবে সেই প্রশ্ন উঠছেই। জাতীয় দলের নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশারও মেনে নিলেন, ডিপিএল খেলে টেস্ট খেলতে গেলে কখনই আদর্শ প্রস্তুতি নেওয়া যাবে না।

Advertisements
Advertisements

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই না, টি-টোয়েন্টি খেলে টেস্ট খেলতে যাওয়া অবশ্যই আদর্শ প্রস্তুতি নয়। আমাদের একটা সুযোগ আছে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলার, দুই দিনের ম্যাচ। যে কয়দিন সময় পাব এর মধ্যেই প্রস্তুতি নিতে হবে। এর চেয়ে ভালো প্রস্তুতির সুযোগ আমাদের হাতে নেই।’

জিম্বাবুয়েতে বাংলাদেশ দল দুই দিনের একটি ম্যাচ খেলবে, তাতে আদৌ প্রস্তুতির সিকিভাগ পূরণ হবে কি না সেই প্রশ্ন অবান্তর নয়। বাশার মনে করছেন, লঙ্গার ভার্শন না খেলে টেস্ট খেলতে গেলে প্রস্তুতির ঘাটতি অস্বাভাবিক নয়।

তিনি বলেন, ‘খুব ভালো হত যদি ফার্স্ট ক্লাস খেলে টেস্ট খেলতে যেতাম। ওখানে গিয়ে এক-দুটি চার দিনের ম্যাচ খেলতে পারলে আরও ভালো হত। আপাতত এটাই আমাদের প্রস্তুত করার সেরা সুযোগ। তবে হ্যাঁ আদর্শ নয়। কিন্তু একে অজুহাত হিসেবে নিতে চাচ্ছি না। যেরকম পরিস্থিতি বা কন্ডিশনই থাকুক, আমরা ভালো করতে চাই।

Related Post