এমবাপ্পে নেইমার ডি মারিয়ার মধ্যে কে সেরা?

লিগ ওয়ানের দল মোনাকোতে খেলার কারণে পিএসজির তারকা নেইমার, কিলিয়ান এমবাপ্পে এবং ডি মারিয়ার মুখোমুখি হতে হয় মোনাকোর ডিফেন্ডার কায়ো হেনরিককে। পিএসজির আক্রমন ভাগের তিন তারকা সম্পর্কে তাই ভালো করেই জানা এই ডিফেন্ডারের।

তবে এই তিনজনের মধ্যে কাকে আটকানো বেশি কঠিন? সম্প্রতি এমনই কঠিন এক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় তাকে।

হেনরিক বলেন, “তাদের তিন জনের মধ্যে একজনকে বেছে নেয়া কঠিন। তিনজনই দুর্দান্ত। এমবাপ্পে গতিশীল এবং ড্রিবলিং তার শক্তিশালী পয়েন্ট। নেইমারের ড্রিবলিং অনন্য এবং যেকোন সময়ে জায়গা বের করতে পারে সে। ডি মারিয়ার মুখোমুখি হওয়াটাও কঠিন। আমি মনেকরি তারা তিনজনই ভিন্ন ভিন্ন কারণে আটকানো কঠিন।”

নেইমার দা সিল্ভা স্যান্তোস জুনিয়র (পর্তুগিজ উচ্চারণ: [nejˈmaʁ dɐ ˈsiwvɐ ˈsɐ̃tuj ˈʒũɲoʁ]; জন্ম ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৯২), সাধারণত নেইমার নামে পরিচিত, একজন ব্রাজিলীয় পেশাদার ফুটবলার, যিনি ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন এবং ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে একজন ফরোয়ার্ড বা উইঙ্গার হিসেবে খেলেন। তাকে আধুনিক বিশ্বের উদীয়মান ফুটবলারদের মধ্যে অন্যতম মনে করা হয়।

নেইমার ১৯ বছর বয়সে ২০১১ এবং ২০১২ সালে দক্ষিণ আমেরিকার বর্ষসেরা ফুটবলার নির্বাচিত হন।[১] ২০১১ সালে নেইমার ফিফা ব্যালন ডি’অরের জন্য মনোনয়ন পান, তবে ১০ম স্থানে আসেন। তিনি ফিফা পুরস্কারও অর্জন করেন।[২] তিনি সর্বাধিক পরিচিত তার ত্বরণ, গতি, বল কাটানো, সম্পূর্ণতা এবং উভয় পায়ের ক্ষমতার জন্য। তার খেলার ধরন তাকে এনে দিয়েছে সমালোচকদের প্রশংসা, সাথে প্রচুর ভক্ত, মিডিয়া এবং সাবেক ব্রাজিলীয় ফুটবলার পেলের সঙ্গে তুলনা।

আনহেল ফাবিয়ান দি মারিয়া এর্নান্দেজ (স্পেনীয়: Ángel Fabián di María Hernández; জন্ম ১৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৮৮) একজন আর্জেন্টাইন ফুটবলার যিনি বর্তমানে উইঙ্গার হিসেবে ফরাসী ক্লাব পিএসজি[২] এবং আর্জেন্টিনা জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে খেলে থাকেন। তার কয়েকটি ডাকণাম রয়েছে: ‘‘এল আনহেলিতো’’, ‘‘দি মাহিয়া’’, ‘‘এল ফ্লাকো’’, ‘‘এল পিবিতো’’ এবং ‘‘ফিদেও’’।[৩]

কিলিয়ান সানমি এমবাপে লত্তিন (ফরাসি উচ্চারণ: ​[kiljan (ə)mbape]; জন্ম ২০ ডিসেম্বর ১৯৯৮) হলেন একজন ফরাসি পেশাদার ফুটবল খেলোয়াড়। তিনি স্ট্রাইকার হিসেবে মোনাকো থেকে ধারে প্যারিস সেন্ট জার্মেই এবং ফ্রান্স জাতীয় ফুটবল দলে খেলে থাকেন

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment