১৪০ বলে ১৪৪ রানের অবিশ্বাস্য ম্যাচ খেলে মাঠ ছড়েন ইমরুল

বাংলাদেশের যদি কপাল পুড়া ক্রিকেটারের তালিকা করতে যায় তাহলে প্রথমে নাম আসবে ইমরুলের যে ভালো খেলেই দলে সুযোগ পায়না। আজ ইমরুলের একটি ঝলমলে ইনিংস ফিরে দেখা। সেই দিন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে ১৪৪ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে দলকে জেতাতে বড় ভূমিকাপালন করেছিলেন জাতীয় দলের ওপেনার ইমরুল কায়েস। ১৪০ বল মোকাবেলায় ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস পাওয়ার দিন আরও কিছু অর্জনে ভাগ বসিয়েছিলেন তিনি।

একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি (১৪৪ রান) ইমরুল কায়েসের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। এর আগে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করা ১১২ রানের ইনিংসটি ছিল তার ক্যারিয়ার সেরা।

ওয়ানডে ইতিহাসে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস এটি। মুশফিকুর রহিমের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করা ১৪৪ রানের ইনিংসের পাশে আজ নিজের নাম লেখালেন তিনিও।

ঘরের মাটিতে যেকোনো দেশের বিপক্ষে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের পক্ষে এটি ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। এর আগে তামিম ইকবালের করা পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৩২ রানের ইনিংসটি ছিল এই তালিকার শীর্ষে।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে কায়েসের এই ইনিংসটি কোনো বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। তালিকায় সবার শীর্ষে অবস্থান তার সতীর্থ আরেক বাংলাদেশি ওপেনারের বুলাওয়েতে করা ১৫৪ রানের ইনিংসটি। যা একইসাথে কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটারের পক্ষে ওয়ানডেতে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৩ চার ও ৬ ছক্কাসহ মোট ১৯টি বাউন্ডারিতে ১৪৪ রানের ইনিংস সাজান বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। যা বাংলাদেশি ক্রিকেটারের পক্ষে যৌথভাবে এক ইনিংসে খেলা সর্বোচ্চ বাউন্ডারি হাঁকানোর রেকর্ড। এর আগে ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে অপরাজিত ১২৭ রান করার পথে একই কীর্তি গড়েন সৌম্য সরকার।

১৯ বাউন্ডারির মধ্যে ৬টি ছক্কা হাঁকান তিনি। তামিম, সৌম্যর পর তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে একই ম্যাচে এমন কীর্তি গড়লেন তিনি।
১৪৪ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলার পথে সপ্তম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে গতকাল সব ফরম্যাট মিলিয়ে ৪ হাজার রান করার গৌরব অর্জন করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment