অসন্তুষ্টি নিয়ে হলেও কোপায় খেলতে রাজি নেইমাররা

রাজনৈতিক কারণে কলম্বিয়া এবং করোনার কারণে আর্জেন্টিনা থেকে কোপা আমেরিকা আয়োজনের দায়িত্ব সরিয়ে আনতে বাধ্য হয়েছে লাতিন আমেরিকা ফুটবল কনফেডারেশন, কনমেবল। শেষ পর্যন্ত ব্রাজিলকেই কোপা আয়োজনের দায়িত্ব দিয়েছে তারা।

কিন্তু যেখানে ব্রাজিল করোনায় পুরোপুরি বিধ্বস্ত, সেখানে নিজেদের দেশে কোপা আমেরিকার মত একটি ব্যায়বহুল টুর্নামেন্ট আয়োজনের তীব্র বিরোধীতা করলেন ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা। নেইমার, মার্সেলোনা, ক্যাসেমিরো কিংবা ডেভিড সিলভারা, এমনকি কোচ তিতেও চান না তাদের দেশে কোনোভাবেই কোপা আমেরিকা অনুষ্ঠিত হকো।

তবে নানা আলোচনা-সমালোচনার পর শেষ পর্যন্ত এই টুর্নামেন্টে খেলতে রাজি হয়েছেন নেইমাররা। আজ (বুধবার) এ বিষয়ে সবুজ-সঙ্কেতও দিয়েছেন তারা।

মূলতঃ আর্জেন্টিনা কোপা আমেরিকায় খেলতে রাজি হওয়ার পরই চাপে পড়ে যায় ব্রাজিল ফুটবলাররা। যদিও তারা বলেছিল, কোপায় খেলার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের বাছাই পর্বের ম্যাচের পরই নেবেন। প্যারাগুয়েকে হারানোর পরই কোপায় অংশ নেয়ার বিষয়ে সবুজ-সঙ্কেত দিল ব্রাজিলিয়ান ফুটবলাররা।

তবে খেলতে রাজি হলেও, লাতিন আমেরিকা ফুটবল কনফেডারেশন বা কনমেবলের উপর চূড়ান্তভাবে বিরক্ত ব্রাজিলিয়ানরা। যদিও, পেশাদার ফুটবলার হিসেবে দেশের প্রতি নিজেদের দায়িত্ব পালন করার জন্যই কোপায় খেলতে রাজি হয়েছেন বলে জানিয়েছেন নেইমার, রবার্তো ফিরমিনোরা।

ব্রাজিল ফুটবলারদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘চিলিতে বা ব্রাজিলে যেখানেই কোপা আমেরিকা হোক না কেন, যেভাবে কনমেবল এটা করার চেষ্টা করছে, সেটা সঠিক পথ নয়। মানবিক বা পেশাদার, যে কোনো কারণেই হোক, আমরা পুরো বিষয়টা নিয়ে অসন্তুষ্ট।’ এর সঙ্গে তারা যোগ করেন, ‘আমরা কোপা আমেরিকা সংগঠকদের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছি ঠিকই, তবে ব্রাজিলের জাতীয় দলকে না বলতে পারব না।’

মূলতঃ করোনার কারণে দক্ষিণ আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে ব্রাজিলের অবস্থা খুবই নাজুক। করোনায় আক্রান্তের হিসেবে পুরো বিশ্বের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, ভারতের পরেই রয়েছে ব্রাজিল। সে কারণেই ব্রাজিলে কোপা আমেরিকার আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন উঠে যায়। তীব্র প্রতিবাদ জানান ব্রাজিল জাতীয় দলের ফুটবলাররা।

একেবারে প্রথমে আর্জেন্টিনা এবং কলম্বিয়ায় যৌথভাবে কোপা আমেরিকা আয়োজন করার কথা ছিল। পরে রাজনৈতিক কারণে কলম্বিয়ার পরিবের্তে শুধুমাত্র আর্জেন্টিনাকেই এককভাবে দায়িত্ব দেওয়া হয় কোপা আয়োজনের। কিন্তু আর্জেন্টিনায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলে ভেন্যু পাল্টানো হয়। কনমেবল সিদ্ধান্ত নেয়, ব্রাজিলে কোপার আয়োজন করা হবে। এরপর থেকেই তীব্র আন্দোলন শুরু ব্রাজিলে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment