এইমাত্র পাওয়াঃ আপাতত স্থগিত কোপা আমেরিকা, হতাশ ফুটবল বিশ্ব!

হাতে বাকি ছিল আর মাত্র ১৩ দিন। কিন্তু, তার আগেই স্থগিত করে দেওয়া হল কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট। তবে ঠিক কোন কারণে এই স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়, সেই ব্যাপারে খোলসা করা হয়নি।

এইসময় ডিজিটাল ডেস্ক : দক্ষিণ আমেরিকা ফুটবল কনফেডারেশন (CONMEBOL) জানিয়ে দিল যে আর্জেন্টিনায় কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট আয়োজন করা সম্ভব নয়। টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার মাত্র ১৩ দিন আগে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হল।

ইতিপূর্বে ঠিক ছিল যে দক্ষিণ আমেরিকার ১০টি দেশ নিয়ে আয়োজিত এই টুর্নামেন্ট আগামী ১৩ জুন থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত আর্জেন্টিনা এবং কলম্বিয়ায় আয়োজিত হবে। কিন্তু, কলম্বিয়ায় বর্তমানে রাজনৈতিক হিংসা চলার কারণে ২০ মে জানিয়ে দেওয়া হয় যে ওই দেশে টুর্নামেন্টের আয়োজন সম্ভব নয়। আর এবার সেই পথে হাঁটল আর্জেন্টিনাও। CONMEBOL-র পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতি বিচার করেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

কিন্তু, ঠিক কোন ধরনের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হল, সেটা অবশ্য খোলসা করেনি CONMEBOL। তবে আশঙ্কা করা হচ্ছে, আর্জেন্টিনায় করোনার প্রভাব যেভাবে বেড়ে চলেছে, সেকথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

একটি সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “আপাতত অন্য কোনও দেশে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা যায় কি না, সেটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এই বিষয়ে খুব তাড়াতাড়ি আপডেট দেওয়া হবে।” তবে কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট স্থগিত হয়ে যাওয়ার কারণে মেসির দেশ যে রীতিমতো হতাশ, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুসারে কোপা আমেরিকা টুর্নামেন্ট ১৩ জুন থেকে ১০ জুলাইয়ের মধ্যে আয়োজন হওয়ার কথা ছিল। দক্ষিণ আমেরিকার দলগুলো এই টুর্নামেন্টের জন্য ইতিমধ্যেই অনুশীলন শুরু করে দিয়েছি। চলতি সপ্তাহেই আবার বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জনকারী ম্যাচের দ্বিতীয় রাউন্ড শুরু হতে চলেছে।

অন্য কন্টিনেন্টাল টুর্নামেন্টগুলোর মতোই ২০২০ সালে কোপা আমেরিকা আয়োজন করার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের কারণে এই টুর্নামেন্ট স্থগিত করে দিতে হয়। তবে দক্ষিণ আমেরিকায় কোভিডের প্রভাব ক্রমশ বাড়তে থাকায় পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে ওঠে। পাশাপাশি টিকাকরণের কাজও অত্যন্ত ধীরগতিতে হচ্ছে।

বিগত কয়েকদিনে আর্জেন্টিনায় করোনা ভাইরাসের প্রভাব মারাত্মক হারে বেড়েছে। বিগত ৭ দিনের মধ্যে প্রায় ৩৫,০০০ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। পাশাপাশি ৫০০ জন মারাও গেছেন। তার থেকেও বড় কথা এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আর্জেন্টিনায় মোট ৭৭ হাজার মানুষ মারা গেছেন। মেসির দেশে এই ভাইরাসের প্রভাব ক্রমশ বেড়েই চলেছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment