রোহিতের কাছে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবেন কোহলি!

বিশ্বের একাধিক দেশেই স্প্লিট ক্যাপ্টেন্সি প্রথা চালু রয়েছে। ইংল্যান্ডে যেমন জো রুট, ইয়ন মর্গ্যান দুটো আলাদা ফরম্যাটে জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেন। নেতৃত্বে কোহলির নিরঙ্কুশ আধিপত্য খর্ব হতে চলেছে। শীঘ্রই টিম ইন্ডিয়ার তিন ফরম্যাটে আলাদা আলাদা অধিনায়ক নিয়োগ করা হবে।

এমনই চাঞ্চল্যকর ভবিষ্যৎবাণী করলেন প্রাক্তন উইকেটকিপার এবং নির্বাচক প্রধান কিরণ মোরে। বুধবারই ইন্ডিয়া টিভি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কিরণ মোরে জানিয়ে দিলেন, “আমার মনে হয় বোর্ডের দৃষ্টিতে বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। দৃঢ় বিশ্বাস রোহিত শর্মাকে নেতৃত্বে সুযোগ দেওয়া হবে। কোহলি ধোনির অধীনে খেলে এখন নেতা হিসাবে অনেক চতুর। কতদিন টি২০ এবং ওডিআই-য়ের ক্যাপ্টেন থাকবে, সেটা নিশ্চয় ও ভেবে দেখবে।

ইংল্যান্ড সফরের পরেই পুরো বিষয়টা পরিষ্কার হবে।” জাতীয় দলের জার্সিতে ১৯৮৪ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত উইকেটকিপিংয়ের দায়িত্ব সামলেছেন কিরণ মোরে। ২০০৬ সালে দিলীপ ভেঙ্গসরকার নির্বাচক প্রধান হওয়ার আগে জাতীয় দলের নির্বাচক প্রধানও ছিলেন। বিশ্বের একাধিক দেশেই স্প্লিট ক্যাপ্টেন্সি প্রথা চালু রয়েছে। ইংল্যান্ডে যেমন জো রুট, ইয়ন মর্গ্যান দুটো আলাদা ফরম্যাটে জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দেন। অস্ট্রেলিয়ায় আবার টিম পেইন, ফিঞ্চ নেতা টেস্ট ও সীমিত ওভারের ক্রিকেটে।

বর্তমানে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের স্কাউট এবং উইকেটকিপিং পরামর্শদাতার ভূমিকা পালন করা কিরণ মোরে জানিয়েছেন, “ভারতেও স্প্লিট ক্যাপ্টেন্সি নীতি সফল হবে। এই বিষয়ে সিনিয়র ক্রিকেটাররা কী ভাবছেন, সেটা জাতীয় দলের ভবিষ্যতের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। তিন ফরম্যাটে অধিনায়ক হওয়ার পাশাপাশি কোহলিকে পারফর্মও করতে হচ্ছে। এটা মোটেই সহজ কাজ নয়। আর এই জন্য কোহলির কৃতিত্ব প্রাপ্য।

জাতীয় দলের অধিনায়ক হওয়ার পাশাপাশি ও পারফর্মও করে চলেছে। তবে খুব শীঘ্রই এমন দিন আসতে চলেছে, যখন বিরাট হয়ত নিজেই বলবে, অনেক হয়েছে, এবার রোহিতকে ক্যাপটেন করা হোক।” ধোনির অবসরের পর তিন ফরম্যাটেই জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন বিরাট কোহলি। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বিরাটের সহ অধিনায়কের ভূমিকা পালন করেন রোহিত শর্মা। আবার টেস্টে কোহলির ডেপুটি অজিঙ্কা রাহানে।

চলতি বছরেই রাহানের নেতৃত্ব ভারত অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয় সম্পন্ন করেছিল

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment