মুশফিকের সাথে মন কারাপ পাপনের!

লঙ্কানদের বিপক্ষে সেঞ্চুরির সুযোগ তৈরি করেও ব্যর্থ হয়েছেন মুশফিকুর রহিম। মাত্র ১৬ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিস করায় তাঁর জন্য আফসোস হচ্ছে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপনের।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ব্যাট হাতে ফিফটির দেখা পাননি মুশফিক। সেই সাথে লঙ্কানদের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে ফিফটি পেলেও করতে পারেননি সেঞ্চুরি। শেষ ৬ ওয়ানডেতে যেখানে নেই কোন সেঞ্চুরি সেখানে মুশফিকের ভেতর ভালো করার তাড়না কাজ করাটাই স্বাভাবিক। সেই তাড়না থেকেই ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সেঞ্চুরির আশা দেখিয়েছিলেন দলের এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

৪৩ রানে দুই উইকেট পড়ার পর ক্রিজে নেমে হাসারাঙ্গা, উদানা, ধনঞ্জয়া, সান্দাকানকে বেশ ভালো খেলছিলেন তিনি। একটা সময় সেঞ্চুরির আশা উঁকি দিলেও সান্দাকানের বলে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে ৮৪ রানেই উদানার হাতে ক্যাচ তুলে দেন মুশফিক। সেঞ্চুরির করার আক্ষেপ যে কতটা পুড়িয়েছে মুশফিককে সেটি তাঁর আউট হওয়ার পরই বুঝা গিয়েছে।

বাংলাদেশের ইনিংস শেষে মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান। সেখানে তামিম ও মুশফিককে নিয়ে আফসোস প্রকাশ করেছেন এই বিসিবি প্রধান।

“তামিম, মুশফিক, রিয়াদ, সাকিব- যারা সিনিয়র ক্রিকেটার এদের নিয়ে এখন মন্তব্য করতে চাই না এই কারণে যে তামিম এই কোভিড সিচুয়েশনে কয়েকটি সেঞ্চুরি হাতছাড়া হয়ে গেল। তারমধ্যে আজকে আমি নিশ্চিত ছিলাম, পিচ যেমন ছিল তাতে করে তামিমের জন্য উপযুক্ত হওয়ার কথা। এখন ও বলতে পারবে ভালো, আমি তো মাঠে গিয়ে খেলছি না। মুশফিক অসাধারণ ইনিংস খেলেছে আজকে এবং ও অসাধারণ খেলোয়াড়ও। তামিম, রিয়াদ, মুশফিক এবং সাকিব তো অসাধারণ খেলোয়াড়ই আমাদের, আমরা সেটি অস্বীকার করছি না।”

“তাঁরা আমাদের দলের সেরা ব্যাটসম্যান। ওর জন্য খারাপ লাগে যে একটি নিশ্চিত সেঞ্চুরি হাতছাড়া হয়ে গেল। কারণ ৮৪ রান করে রিভার্স সুইপ করেছে… কিন্তু এই শটটা ও খুব ভালো খেলে, ওর পছন্দেরও। ওই সময় একটা প্লেয়ারের কী মনে হয় সেটা ওই ভালো বলতে পারবে কিন্তু ওর জন্য আফসোস হচ্ছে। দু’জনের জন্যই আফসোস হচ্ছে যে এখানে একটা সুযোগ ছিল সেঞ্চুরি করার।”

উল্লেখ্য, মুশফিকের ৮৪, মাহমুদউল্লাহর ৫৪, তামিমের ৫২ এবং শেষদিকে আফিফের অপরাজিত ২৭ রানের সুবাধে শ্রীলঙ্কাকে ২৫৮ রানের লক্ষ্য ছুড়ে দেয় বাংলাদেশ।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment