বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড ত্রিদেশীয় সিরিজ, অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের মাটিতে

আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসছে অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়া আসতে পারে অক্টোবরের শুরুর দিকে, নিউ জিল্যান্ড আসবে এর আগেই।

আইসিসির ভবিষ্যৎ সফর সূচী অনুযায়ী, ৩টি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলতে অক্টোবরে বাংলাদেশ সফরে আসবে ইংল্যান্ডও।

অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের সফর কাছাকাছি সময়ে হতে পারে বলে এই দুই দেশের সঙ্গে বাংলাদেশকে নিয়ে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ হতে পারে।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি অবশ্য বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ত্রিদেশীয় সিরিজ নিয়ে এখনই আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু বলতে চান না তারা।

তিনি বলেন,

“অস্ট্রেলিয়া আসছে, আপাতত এটাই নিশ্চিত। ইংল্যান্ডের সফর তো এফটিপিতেই আছে। ত্রিদেশীয় সিরিজ নিয়ে এখনই আমরা কিছু বলতে চাই না।

কারণ সব পক্ষের একমত হওয়ার ব্যাপার আছে। সময় আরও কাছাকাছি এগিয়ে এলে অনেক কিছু পরিস্কার হবে। এখই মন্তব্য করার সময় হয়নি। অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ডের আগে নিউ জিল্যান্ডও আসবে টি-টোয়েন্টি খেলতে।”

ত্রিদেশীয় সিরিজ না হলে বাংলাদেশে ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলবে অস্ট্রেলিয়া। নিউ জিল্যান্ডও খেলতে পারে ৩টি টি-টোয়েন্টি। কোনো সিরিজেরই সূচি এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি টেস্ট খেলতে গত বছর বাংলাদেশে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ডের।

কোভিডের প্রকোপে স্থগিত হয়ে যায় দুটি সিরিজই। অস্ট্রেলিয়া পরে বলেছিল, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশে ২০ ওভারের ম্যাচের সিরিজ খেলে কিছুটা পুষিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবে তারা। সেটিই এখন বাস্তব রূপ পেতে যাচ্ছে।

আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হবে অক্টোবর-নভেম্বরে, ভারতে। বাংলাদেশকে খেলতে হবে প্রাথমিক পর্বে।

স্থগিত হওয়া টেস্ট সিরিজগুলো হওয়ার সম্ভাবনা আর নেই, বললেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী। তার ভাষ্যমতে,

“ম্যাচগুলি তো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ ছিল। সামনের জুনেই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। কাজেই ওই ম্যাচগুলি হওয়ার কোনো বাস্তবতা আর নেই। দু-একটি ম্যাচ সিরিজ হয়তো ভবিষ্যতে কোনো কিছু করা সম্ভব, এছাড়া আর সম্ভব নয়।”

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখনও পর্যন্ত মাত্র চারটি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ। পঞ্চমটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার থেকে।

Related Post

x