এই একজনের সম্মানে নিজের অধিনায়কত্ব ছেরে তার নেতৃত্বে খেলতে চান মুমিনুল!

ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের সফলতম অধিনায়ক ধরা হয় মাশরাফি বিন মুর্তজাকে। কিন্তু টেস্ট ম্যাচে অধিনায়কত্বের সুযোগ পেয়েছিলেন মাত্র ১ ম্যাচ।

২০০৯ সালে অধিনায়কত্ব পাওয়ার পরেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে হাঁটুর ইনজুরিতে পড়েন। এরপর আর টেস্ট খেলাই হয়নি সাতবার একই ইনজুরিতে পড়া মাশরাফির।

যদিও টেস্ট ক্রিকেট থেকে এখনো অবসরের ঘোষণা দেননি তিনি। অধিনায়কত্ব ছাড়লেও ওয়ানডে ক্রিকেটকেও বিদায় বলেননি নড়াইল এক্সপ্রেস। তবে ২০১৭ সালে শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি দিয়ে সংক্ষিপ্ত এই ফরম্যাট থেকে অবসর নেন।

ওয়ানডেতে মাশরাফির অধীনায়কত্বে খেলা হলেও টেস্টে কখনো এই সুযোগ হয়নি মুমিনুল হকের। তাই বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক জানালেন, তার অধীনে নয়, মাশরাফির অধিনায়কত্বের অধীনে একটি হলেও টেস্ট ম্যাচ খেলতে চান তিনি।

‘দারাজ’ প্রেজেন্টস ‘ক্রিকফ্রেঞ্জি’ আয়োজিত পাঁচ পর্বের বিশেষ ঈদ লাইভ অনুষ্ঠানে এসেছিলেন মুমিনুল। সেখানেই তিনি বলেন, ‘আমি চাইনা আমার অধিনায়কত্বে উনি খেলুক বরং আমি ওনার অধিনায়ত্বে একটি টেস্ট ম্যাচ খেলতে চাই।’

টেস্ট থেকে কবে মাশরাফি অবসর নেবেন তা অজানা সকলেরই। মাশরাফিও বেশ কয়েকবার জানিয়েছিলেন এখনও ভাবেননি ঠিক কবে সব ধরণের ক্রিকেট থেকে বিদায় নেবেন। তবে তার বিদায়ী ম্যাচ আয়োজন করা হবে কিনা এটা পুরোপুরি মাশরাফির ওপরই ছেড়ে দিলেন মুমিনুল।

তিনি বলেন, ‘এটা তো মাশরাফি ভাইয়ের ইচ্ছা। আমার কাছে মনে হয় যদি ইচ্ছা করে উনি খেলতে পারেন। এটা পুরোপুরি ওনার সিদ্ধান্ত। বাংলাদেশের কিংবদন্তী ক্রিকেটার উনি। ওনার ব্যাপারে আমার কথা বলাটা বেশ কঠিন হবে। এটা পুরপুরি ওনার সিদ্ধান্ত উনি খেলবেন কি খেলবেন না।’

সংসদ সদস্য মাশরাফিকে ভবিষ্যতে বোর্ডে কর্মরত দেখতে চান মুমিনুল। তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে ওনাকে বোর্ডে আমি না অনেকেই দেখতে চায় আমার কাছে যেটা মনে হয়। একজন ক্রিকেটার হিসেবে চাইতেই পারি অস্বভাবিক কিছু না।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment