তামিম ইকবালের ৮০ রানে মাহমুদউল্লাহর সবুজ দলকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে তামিমের লাল দল

শ্রীলংকার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের আগে আজ বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠে একটি প্রস্তুতি ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছে ক্রিকেটাররা। তামিম ইকবালের দল বিসিবি লাল দলের বিপক্ষে টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিং ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ৪৫ ওভারে ২৮৫ রান সংগ্রহ করে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের দল বিসিবি সবুজ দল। যেখানে ২৮৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে তামিমের দ্রুতগতির ৮০ ও মুশফিকুর রহিমের হাফ সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেটে জয় পেয়েছে দলটি।

সৌম্য ইনিংসের শুরুতেই আউট হন মোস্তাফিজুর রহমানের বলে। তার শটে বল বোলার মোস্তাফিজের হাত ছুঁয়ে নন স্ট্রাইকের স্টাম্পে আঘাত করে, তখন স্ট্রাইকিং প্রান্তে সৌম্য ছিলেন সীমানার বাইরে। ২ রানে রান আউট হয়ে তিনি ফিরলে তাকে ভালো প্রস্তুতির সুযোগ দিতে ফের ক্রিজে পাঠানো হয়। আস্থার প্রতিদান তিনি দেন সবচেয়ে বেশি সময় ক্রিজে থেকে। ১১৫ মিনিট খেলে ৭০ বলে চারটি চার ও তিনটি ছয়ে ৬০ রানে অপরাজিত ছিলেন সৌম্য। আর ৩৮ রান করে অবসরে যান নাঈম।

সাকিব ২০ বলে ২ চারে ২৮ রান করে শেখ মাহেদী হাসানের বলে আউট হন। মোহাম্মদ মিথুনের প্রস্তুতিও ভালো হয়নি, ৩ রান করেন তিনি। তাকেও মাঠছাড়া করেন মাহেদী। এরপর আফিফ ও মাহমুদউল্লাহ দেখান দাপট। ৫৪ বলে ৬ চার ও ২ ছয়ে ৬২ রান করে অবসরে যান অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

৪৯ বলে পঞ্চাশ ছোঁন তিনি। ৪৭ বলে হাফ সেঞ্চুরি করা আফিফ ৫৪ বল খেলে ইনিংস সেরা ৬৪ রান করে অবসরে যান। ৭ চার ও ৩ ছয় ছিল তার ইনিংসে। মেহেদী হাসান মিরাজ ব্যর্থ ব্যাট হাতে, ১৭ রান করে শরিফুল ইসলামের শিকার হন তিনি।

জয়ের জন্য ২৮৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে দলকে বেশ ভালো শুরু এনে দেন বিসিবি লাল দলের দুই ওপেনার তামিম ও লিটন দাস। এক প্রান্ত থেকে তামিম দ্রুতগতিতে রান তুললেও লিটন সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ব্যক্তিগত ১৬ বলে ১৫ রান করে লিটন ফিরলে ভাঙে তাঁদের দুজনের ৬২ রানের উদ্বোধনী জুটি।

ডানহাতি এই ওপেনারকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে ফেরান সাকিব। এরপর তিনে নামা ইমরুল কায়েসকে নিয়ে জুটি গড়েন অধিনায়ক তামিম। এই দুজনের জুটি থেকে আসে ৬১ রান। ৩২ বলে ৩৩ রান করে ইমরুল ফিরলে ভাঙে তাঁদের এই জুটি। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানকে ফেরান মাহমুদউল্লাহ।

শুরু থেকে দারুণ ব্যাটিং করলেও শেষ পর্যন্ত সেঞ্চুরির দেখা পাননি তামিম। মাহমুদউল্লাহর বলে তুলে মারতে গিয়ে শহিদুল ইসলামের হাতে ক্যাচ আউট হয়েছেন তিনি। ফলে মাত্র ৫৮ বলে ৮০ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলে সাজঘরে ফিরতে হয় বাঁহাতি এই ওপেনারকে। ইনিংসটি খেলতে ৪টি ছক্কা ও ৭টি চার মেরেছেন।

তামিম ফিরলেও হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন মুশফিক। শেষ পর্যন্ত ৫৫ বলে ৬৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। এ ছাড়া নাজমুল হোসেন শান্ত ৯, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ২৮, শেখ মেহেদী হাসান ২৪ ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন করেছেন ২৬ রান।

প্রস্তুতি ম্যাচের পর আগামী ২৩ মে শুরু হবে দুই দলের মধ্যকার প্রথম ওয়ানডে ম্যাচ। বাকি দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ২৫ এবং ২৮ মে। সব কয়টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দুপুর ২:৩০ মিনিটে।

বিসিবি লাল দল: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, লিটন কুমার দাশ, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিথুন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শেখ মাহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ, সাইফ উদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান ও শরিফুল ইসলাম।

বিসিবি সবুজ দল: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সাকিব আল হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, সৌম্য সরকার, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, শহিদুল ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment