অফ ফর্ম নয়, দল থেকে বাদ পরার আসল কারন জানালেন সাব্বির!

একটা সময় তাঁকে বাংলাদেশ ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট বলা হচ্ছিল। কিন্তু শেষমেষ তাঁর মতো প্রতিভার অপচয় হলই বলা চলে। বহুদিন জাতীয় দলের হয়ে খেলার সুযোগ পাননি বাংলাদেশের ক্রিকেটার সাব্বির রহমান।

ফলে এখন তাঁর জায়গা হয়েছে পাড়ার ক্রিকেটে। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় অনুষ্ঠিত পাড়ার ক্রিকেট টুর্নামেন্টে খেপ খেলে বেড়ান সাব্বির। বাংলাদেশের জাতীয় দলের হয়ে খেলার সময় মাঠের বাইরে বহু বিতর্কিত ঘটনা ঘটিয়েছেন। সেই সব ঘটনা তাঁর কেরিয়ারে প্রভাব ফেলেছিল।

ধারণা করা হচ্ছিল নিউজিল্যান্ড সফরে তাকে বিবেচনায় রাখা হবে। কারণ দেশটির মাটিতে সফল ব্যাটসম্যান তিনি। কিন্তু তবু কিইউদের বিপক্ষে নেওয়া হয়নি তাকে। এমনকি শ্রীলংকা সফরেও সুযোগ পাননি।

অথচ জাতীয় দলের একসময় রানের চাকা বাড়িয়ে নেওয়ার অন্যতম ভরসা ছিলেন সাব্বির রহমান। অবশ্য দলে সুযোগ না পাওয়ার জন্য নিজের কপালকেই দুষলেন। অফ ফর্ম নয়, বরং শৃঙ্খলা ভঙের কারণে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরের পর থেকে জাতীয় দলের বাইরে রয়েছেন এ তারকা ব্যাটসম্যান।করোনার কারণে দীর্ঘদিন ধরেই জাতীয় লিগসহ ঘরোয়া ক্রিকেট বন্ধ।

class="tie-appear" src="https://i.imgur.com/Hjjwsnc.jpg" />

তাছাড় জাতীয় দলের বাইরে থাকায় সেভাবে প্রাকটিসেরও সুযোগ পাচ্ছেন না। তাই নিজের ফিটনেস ধরে রাখতে মাঝখানে কিছুদিন মাইনর (খ্যাপ) ক্রিকেট খেলেছেন সাব্বির।

দেশের একটি অনলাইন পোর্টালকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ২৯ বছর বয়সী এ তারকা ব্যাটসম্যান বলেন, জাতীয় দলের বাইরে থাকার জন্য অবশ্যই আমি নিজেকেই দোষ দেব। আমি ৬৬টি ওয়ানডে খেলেছি।
এই ম্যাচগুলো খেলার আগে যদি আরও পরিণত থাকতাম, তাহলে আরও কয়েকটা ফিফটি ও সেঞ্চুরি থাকতে পারতো। আমার অভিজ্ঞতা কম ছিল, আমি তখন ম্যাচিউর ছিলাম না।

তিনি আরও বলেন, দল থেকে বাদ পড়ায় একটা ভালো দিক আছে। নিজেকে শুধরে নেওয়ার সুযোগ আছে। কোভিডের কারণে গত দুই বছর সেভাবে খেলা হয়নি। ফলে নিজেকে প্রস্তুত করাও হচ্ছে না।

কিন্তু সময় এখনও আছে। বয়সও আছে। অনেক দিন খেলার ইচ্ছে আছে। ইনশাল্লাহ আমি বিশ্বাস করি আবার কামব্যাক করতে পারব।এক প্রশ্নের জবাবে সাব্বির বলেন, যে সব বিতর্ক আমার নামের সাথে আছে, সেগুলোর পেছনে কোনো না কোনো কারণ আছে।

এক হাতে তালি বাজে না। কিন্তু আমি যদি বলি সেগুলো আমি করিনি, তাহলে ভুল হবে। আবার আমি সেগুলো করেছি, বললেও ভুল হবে। নিজের মতো চলতে গিয়ে অনেক সময় ঝামেলা হয়েছে।

আমি মনে করি সেগুলো থেকে দূরে থাকা উচিত ছিলো। কারণ আমার ক্যারিয়ার আছে, পারিবারিক জীবন আছে। ফলে ব্যাপারটাগুলো ঠিকমত হ্যান্ডেল করতে না পারায় কিছুটা অনুতপ্ত। আমার আরও সতর্ক থাকা উচিত ছিল।

Related Post