ধ্বংসের মুখে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট, নিষিদ্ধ হতে চলেছেন স্টার্ক-কমিন্সরা

তিন বছর আগে অস্ট্রেলিয়া বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট ম্যাচ চলাকালীন ক্রিকেটে ঘটে এক কলঙ্কিত ঘটনা। সেই ম্যাচে বল টেম্পারিং কাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে দুই অজি তারকা ডেভিড ওয়ার্নার এবং স্টিভ স্মিথ। এছাড়া আরও এক অজি ক্রিকেটারের নাম জড়িয়ে যায় তিনি হলেন ক্যামেরন ব্যানক্রফট।

বল টেম্পারিং কাণ্ডে জড়িত থাকার কারণে এই তিনজনকেই ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। ক্যামেরন ব্যাক্রফটকে নয় মাস এবং ওয়ার্নার ও স্মিথকে এক বছরের জন্য ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। সেই সঙ্গে ওয়ার্নারকে আজীবন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব থেকে নিষিদ্ধ করা হয় এবং দুই বছরের জন্য অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব থেকে নিষিদ্ধ করা হয় স্মিথকে। সেই ঘটনার দীর্ঘদিন পর আবারও বল টেম্পারিং কাণ্ড নিয়ে মুখ খুললেন ক্যামেরণ বানক্রফট।

এক সাক্ষাৎকারে তাকে প্রশ্ন করা হয় সেই ঘটনার ব্যাপারে কি আর কোন অজি ক্রিকেটার জানতেন? তার উত্তরে বানক্রফট বলেন আমরা তিনজন ছাড়াও দলের প্রত্যেক বোলারই সেই ঘটনা সম্পর্কে জানতেন। কারণ এতে বোলারদেরই সুবিধা হয়েছিল। তারপরই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে তারা আবারও নতুন করে সেই ঘটনার তদন্ত করবেন এবং দোষীদের প্রত্যেককে শাস্তি দেবেন। সেই ম্যাচে আস্ট্রেলিয়ার বোলিং আক্রমণের ছিলেন মিচেল স্টার্ক, জস হেজেলহুড, মিচেল মার্শ, প্যাট কামিন্স এবং নাথান লায়ন।

অর্থাৎ ফের যদি এই ঘটনা নিয়ে তদন্ত শুরু হয় তাহলে এই বোলাররাও ফেঁসে যেতে চলেছে। সে ক্ষেত্রে এদেরকেও যদি নির্বাসিত করা হয় তাহলে ভেঙে পড়বে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment