মালদ্বীপে ওয়ার্নার-স্ল্যাটারের হাতাহাতি!

ভারতে করোনা ভাইরাস মহামারী রূপ ধারণ করায় ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) স্থগিত হয়েছে। আইপিএলে বিদেশি ক্রিকেটার এবং সাপোর্টিং স্টাফের প্রায় সবাই ছেড়েছে ভারত। ইংল্যান্ড,দক্ষিণ আফ্রিকা,ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ফিরে এসেছে দেশে।

এদিকে ভারতের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার সকল ফ্লাইট এবং যাত্রী অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ায় বিপত্তিতে পড়েছে আইপিএলে অংশ নেয়া ৪০ জনের মতো ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফ। অস্ট্রেলিয়া সরকারের নির্দেশনায় মালদ্বীপে থাকতে হবে তাদেরকে আগামী ১৫ মে পর্যন্ত।

আইপিএল খেলতে অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার,কোচ,সাপোর্টিং স্টাফ এবং ধারাভাষ্যকর সহ ৩৮ জনের দলের মধ্যে মাইক হাসি ছাড়া অন্যরা অস্ট্রেলিয়া সরকারের নির্দেশনায় বৃহস্পতিবার মালদ্বীপের ফ্লাইটে এই দ্বীপ দেশটিতে পৌছে গেছে। চেন্নাই সুপার কিংসের অস্ট্রেলিয়ান কোচ মাইক হাসি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় তাকে বৃহস্পতিবার চাটার্ড ফ্লাইটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে চেন্নাইয়ে। সেখানে ১০দিন আইসোলেশনে থাকবেন তিনি।

এদিকে মালদ্বীপে গিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার দুই সদস্য মাইকেল স্ল্যাটার ও ডেভিড ওয়ার্নার। সবার আগে মালদ্বীপে গিয়েছিলেন মাইকেল স্ল্যাটার। সেই হোটেলেই উঠেছেন ওয়ার্নারও। শনিবার অস্ট্রেলিয়ার ‘দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ’-এর এক প্রতিবেদনে এসেছে, মালদ্বীপে তাজ কোরাল রিসোর্টে ওঠা অস্ট্রেলিয়ার এই দুই ক্রিকেট তারকা হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন।

সংবাদ মাধ্যমটি জানাচ্ছে, দীর্ঘদিনের বন্ধু এই দুই ক্রিকেটার আড্ডা দেয়ার এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি হয়, সেখান থেকে হাতাহাতি। পরিস্থিতি চলে যায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে। যদিও দুজনেই এই ঘটনাকে মিথ্যা বলে দাবি করেছেন।

স্ল্যাটার ওই সংবাদপত্রের সিনিয়র একজন সাংবাদিককে মেসেজ করেছেন, ‘যে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে, তার কোনো সত্যতাই নেই। আমি আর ডেভি (ওয়ার্নার) খুব ভালো বন্ধু এবং আমাদের মধ্যে মারামারি হওয়ার সম্ভাবনা একদম শূন্যের কোঠায়।’ ওয়ার্নারও এই প্রতিবেদনকে ভিত্তিহীন বলেছেন। অস্ট্রেলিয়ার মারকুটে এই ওপেনার জানান, ‘এমন গুঞ্জনের আসলেই কোনো ধরনের ভিত্তি নেই।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment