শাস্তি মুখে বার্সা, রিয়াল, জুভেন্টাস! কেমন হতে পারে শাস্তি?

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ প্রায় মৃত, এটা বলতে গেলে সর্বজনস্বীকৃত। ‘প্রতিষ্ঠাতা’ ১২ ক্লাবের মধ্যে ৯টি এরই মধ্যে সরে গেছে। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও জুভেন্টাস এখনো গোঁ ধরে বসে আছে।

উয়েফা কাল তাই ঘোষণা করেছে, যে ৯ ক্লাব ফিরে আসার ঘোষণা দিয়েছে, তাদের অল্প কিছু জরিমানা দিয়ে ছাড় দেওয়া হবে। কিন্তু বার্সা-রিয়াল-জুভের ভাগ্যে অপেক্ষা করছে বড় শাস্তি।

উয়েফা সভাপতি আলেক্সান্দোর সেফেরিন বিবৃতিতে বলেছেন, প্রস্তাবিত ‘সুপার লিগ’ থেকে সরে আসার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করা ক্লাবগুলোর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার সব রকম অধিকার উয়েফার আছে।
ইউরোপিয়ান সংবাদমাধ্যমেও গুঞ্জন, উয়েফার সংশোধনের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে বিদ্রোহী লিগকে আঁকড়ে পড়ে থাকলে বড় শাস্তিই পাবে এই তিন ক্লাব।

তাদের চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হতে পারে, এমন একটা গুঞ্জন তো অনেক আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল। স্প্যানিশ রেডিও কাদেনা কোপেকে উদ্ধৃত করে বার্সেলোনাভিত্তিক স্প্যানিশ দৈনিক স্পোর্তও কাল আবার লিখেছে, বার্সা-রিয়াল-জুভের শাস্তি হবে ইউরোপিয়ান টুর্নামেন্টে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা।

সেফেরিন নাকি এমন শাস্তি দেওয়ার কথাই ভাবছেন। ইস্তাম্বুলে ২৬ মে এবারের চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের পর শাস্তির কথা প্রস্তাব করবেন তিনি। যদিও এই তিন ক্লাবকে বাদ দিলে চ্যাম্পিয়নস লিগের আকর্ষণ, বিপণনমূল্য এসবে ধস নামার শঙ্কা থাকেই!

কিন্তু এসবই তো গুঞ্জন। আসলে কী শাস্তি অপেক্ষা করছে মেসির বার্সা, রামোসের রিয়াল কিংবা রোনালদোর জুভেন্টাসের জন্য? মাদ্রিদভিত্তিক স্প্যানিশ দৈনিক মার্কা সেটা বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করেছে। প্রথম আলোর পাঠকদের জন্য তা তুলে ধরা হলো…

বিদ্রোহী সুপার লিগের ১২টি ক্লাবের মধ্যে ৯টির ফিরে আসার আবেদন উয়েফা মেনে নিয়েছে। তিনি এখনো সুপার লিগকে আঁকড়ে ধরে রাখা তিন ক্লাবের বিরুদ্ধে শাস্তির হুমকি আছে।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment