খুশির খবর পেয়ে মনের কথাগুলো খুলে বললেন ইমরুল

বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওপেনার ইমরুল কায়েস। বাংলাদেশের খেলা শেষ কয়েকটি সিরিজে ছিলেন দলের বাইরে। অনেক ভালো খেলার পর অবহেলিত হয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে হতাশা প্রকাশ করেছিলেন। এবার সেই হতাশার দিন শেষ। জায়গা পেয়েছেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘোষণা করা বাংলাদেশ স্কোয়াডে।

গত কয়েক সিরিজ ধরে সাদা বলে ইনিংস উদ্বোধন করা লিটন দাসের পড়তি পারফরম্যান্সই হয়ত ইমরুলকে এই সুযোগ করে দিয়েছে। সাদা বলে ৯টি ইনিংস খেলে লিটন করেছেন কেবল ৮৬ রান।শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে জন্য ২৩ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াডে জায়গা পেয়ে আবার নিজেকে প্রস্তুত করছেন তিনি।

ইমরুল বলেন, ‘ধন্যবাদ জানাই যে আমি আবারও প্রাথমিক দলে ডাক পেয়েছি। এটা আমার জন্য অবশ্যই অনুপ্রেরণার বিষয়। কারণ জাতীয় দলের বাইরে থাকলে, স্কোয়াডের বাইরে থাকলে আসলে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকা যায় না জাতীয় দলের খেলার জন্য।

আমি বলব যে এটা আমার জন্য অনেক বড় সুযোগ আবার নতুন করে চিন্তা ভাবনা করা। আর আমি নিজেকে ওভাবে প্রস্তুত করতে পারব। আমার যে ঘাটতিগুলো ছিল এখন আমি এগুলো নিয়ে কাজ করতে পারব। আমার মনে হয় যে এটা আমার জন্য অনেক বড় একটা সুযোগ আবারও জাতীয় দলকে প্রতিনিধিত্ব করার জন্য।’

২০১৮ সালের ১১ ডিসেম্বর সর্বশেষ জাতীয় দলের পক্ষে ওয়ানডে খেলেছিলেন ইমরুল। ২০১৯ সালে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিলেন। লম্বা সময় পরে জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে ফেরার অনুভূতি নিয়ে তিনি বলেন, জাতীয় দলের বাইরে থাকলে যে জিনিসটা হয় অনেক খারাপ লাগে।

জাতীয় দলের খেলা যখন দেখা হয় তখন ওই জায়গাটাকে অনেক মিস করা হয়। তারপরও আমি বলব যে কিছু কিছু সময় বাদ পড়াটা খেলোয়াড়ের জন্য ভালো, অনেক কিছু শেখা যায় ওখান থেকে, নিজের ভুলগুলো নিয়ে, কি কি ভুল হয়েছে।

আর আমি আসলে কখনো ওভাবে মনে করি নাই যে আমি জাতীয় দলের বাইরে চলে গেছি। সবসময়ই আমি ড্রেসিং রুমটা উপভোগ করি, এটার জন্য আমি যে অনুশীলনটা দরকার, কঠোর পরিশ্রমটা দরকার সেটা করে যাই সবসময়। আমি কখনো ভাবিনা যে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়লে আমি বের হয়ে গেছি। আমি মনে করি পাশেই আছি, হয়ত বা পারফর্ম করতে পারলে আবার ফিরে আসব। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment