ক্যারিয়ারে অষ্টমবারের মতো ৫ উইকেট নিলেন তাইজুল ইসলাম। জিততে হলে ৪৩৭ রানের রেকর্ড গড়তে হবে বাংলাদেশকে

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচে বাংলাদেশকে ৪৩৭ রানের টার্গেট দিয়েছে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে লাঞ্চে বিরতির পর ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৪ রানের নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের হয়ে এই দিন ৫ উইকেট নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম।

বাংলাদেশ বাংলাদেশ মাত্র ২৫১ রানে অলআউট হলে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয়দিন শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ১৭ সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। চতুর্থদিনের খেলায় আজ ফের ব্যাট করতে নামেন আগেরদিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান।

মাত্র ১২ রান তুলে তাইজুল ইসলামের বলে আউট হন ম্যাথিউস। পরের উইকেটে ব্যাট করতে নামা ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে নিয়ে লিড বাড়াতে থাকেন করুনারত্নে। তুলে নেন ক্যারিয়ারের ২৬তম অর্ধশত রান। ব্যক্তিগত ৬৬ রানে সাইফ হাসানের বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন করুনারত্নে।

দলীয় ১২৪ রানের মাথায় ৪১ রান করার ধনঞ্জয় সিলভাকে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এরপর দলীয় ১৬২ রানের মাথায় ২৪ রান করা পাথুম নিশানকাকে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তাইজুল ইসলাম।

লাঞ্চ ব্রেক থেকে ফিরেই প্রথম ওভারেই উইকেটের দেখা পান তাসকিন আহমেদ। ২৪ রান করা নিরোশান দিকভেলাকে প্যাভিলিয়নে ফেরান তাসকিন। এর পরের ওভারেই ৮ রান করা রামেশ মেন্ডিসের উইকেট তুলে নেন তাইজুল ইসলাম।

এর পরের ওভারেই এসে সুরাঙ্গা লাকমালকে আউট করে ক্যারিয়ারের অষ্টমবারের মতো ৫ উইকেটে দেখা পান তাইজুল ইসলাম। ১৯৪ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় ইনিংসে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ৪৩৬ রান।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শ্রীলঙ্কার করা ৪৯৩ রানের বিপরীতে নিজেদের প্রথম ইনিংসে শুভ সূচনা করেন দুই টাইগার ওপনোর তামিম ইকবাল এবং সাইফ হাসান। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে নিজের ৩১তম অর্ধশত পূর্ণ করেন তামিম। অপরপ্রান্তে ভালোই খেলছিলেন উদীয়মান তারকা ক্রিকেটার সাইফ। ওপেনিং জুটিতে দুজনের সংগ্রহ ৯৮ রান।

জয়াবিক্রমার বলে ধনঞ্জয়ার হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ২৫ রান করেনি সাইফ। দ্বিতীয় উইকেটে ব্যাট করতে আসেন আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান নাজমুল হাসান শান্ত। কিন্তু ব্যাট হাতে হতাশ করেছেন তিনি। সাইফ আউট হওয়ার পরের ওভারেই ফেরেন শান্ত। ৪ বল খেলে ব্যক্তিগত খাতায় কোনো রান তুলতে পারেনি শান্ত।

অধিনায়ক মুমিনুল হক নিয়ে ভালোই খেলছিলেন তামিম। দুজন মিলে গড়েন ৫২ রানের জুটি। সেঞ্চুরির দিকেই এগোচ্ছিলেন তামিম। কিন্তু এবারো ব্যর্থ হন। টানা চার ইনিংসে ফিফটির দেখা পাওয়ার পর সেঞ্চুরি পূর্ণ করতে পারলেন না। ফিরেছেন ৭২ রানে।

চতুর্থ উইকেট জুটি মুশফিক-মুমিনুল মিলে তোলেন ৬৩ রান। সেখানে মুশফিকের ব্যাট থেকেই এসেছে ৪০ রান। অনেকটা দ্রুতই রান তুলছিলেন মুশি। ব্যাটিংয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়া এই টাইগার ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফেরান জয়াবিক্রমা। আউট হওয়ার পূর্বে ৬২ বলে ৪০ রান করেন তিনি। এছাড়া ব্যক্তিগত ৪৯ রানে ফিরেছেন মুমিনুল। আর আউট হওয়ার পূর্বে ৮ রান তুলেন লিটন।

এরপর মেহেদী হাসান মিরাজ ১৬ এবং তাইজুল ইসলাম ৯ রান করেন। শেষ তিনজনেরও কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি। যদিও নটআউট ছিলেন রাহী।

বৃহস্পতিবার টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। ব্যাট করতে নেমে লাহিরু থিরিমান্নের ১৪০, দিমুথ করুনারত্নের ১১৮, ওসাদা ফার্নান্দোর ৮১ এবং নিরোশান দিকভেলার অপরাজিত ৭৭ রানের ইনিংসের সুবাদে ৭ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা।

বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন তাসকিন আহমেদ। এছাড়া একটি করে উইকেট পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম এবং শরিফুল ইসলাম।

বাংলাদেশ একাদশ : তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহী ও শরিফুল ইসলাম।

শ্রীলংকা একাদশ : দিমুথ করুনারত্নে, লাহিরু থিরিমান্নে, ওসাদা ফার্নান্দো, অ্যাঞ্জেলা ম্যাথিউস, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা, পাথুম নিশানকা, নিরোশান দিকভেলা, সুরাঙ্গা লাকমাল, রামেশ মেন্ডিস, বিশ্ব ফার্নানন্দো এবং প্রবীণ জয়াবিক্রমা।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment