পোলার্ডের অতিমানবীয় পারফরম্যান্সে মুম্বাইয়ের অবিশ্বাস্য জয়

২১৮ রান তাড়া করা তো আর মুখের কথা নয়, বিশেষ করে প্রতিপক্ষ যখন নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে কোণঠাসা করে রাখে গোটা ব্যাটিং লাইনআপকে! এমন ম্যাচ জিততে হলে চাই অতিমানবীয় ব্যাটিং। কাইরন পোলার্ড সেই দায়িত্ব নিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে এনে দিয়েছেন অবিশ্বাস্য জয়।

দিল্লীতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) চতুর্দশ আসরের ২৭তম ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২১৮ রান সংগ্রহ করে চেন্নাই।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন আম্বাতি রাইডু। ২৭ বলের মোকাবেলায় ৪টি চার ও ৭টি ছক্কা হাঁকিয়ে অপরাজিত থাকেন তিনি। এছাড়া মঈন আলী ৩৬ বলে ৫৮ ও ফাফ ডু প্লেসিস ২৮ বলে ৫০ রান করেন।

মুম্বাইয়ের পক্ষে ২ ওভারে ১২ রানের খরচায় বল হাতে দুটি উইকেট শিকার করেন পোলার্ড, যেখানে কিনা সতীর্থরা বোলিংয়ে দেখিয়েছেন বদান্যতা। পরে তাণ্ডব চালান ব্যাট হাতে। কুইন্টন ডি ককের ২৮ বলে ৩৮, রোহিত শর্মার ২৪ বলে ৩৫, ক্রুনাল পান্ডিয়ার ২৩ বলে ৩২ রানের ইনিংসগুলো চেন্নাইয়ের পাহাড় মাড়ানোর জন্য যথেষ্ট ছিল না। তাই বলের সাথে পাল্লা দিয়ে প্রত্যাশিতভাবে বাড়ছিল না মুম্বাইয়ের রান।

পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাইয়ের বোলারদের ত্রাস হয়ে ওঠেন পোলার্ড। ৬টি চার ও ৮টি ছক্কা হাঁকিয়ে মাত্র ৩৪ বলে অপরাজিত ৮৭ রানের অবিস্মরণীয় ইনিংসে দলকে এনে দেন জয়।

শেষ ওভারে জয়ের জন্য মুম্বাইয়ের প্রয়োজন ছিল ১৬ রান, দুটি চার ও একটি ছক্কা হাঁকানোর পর শেষ বলে ২। লুঙ্গি এনগিডির করা শেষ বলে পোলার্ড সফলভাবে ২ রান নিতে সক্ষম হন। স্বভাবতই ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পেয়েছেন দলকে ৪ উইকেটের নাটকীয় জয় এনে দেওয়া ক্যারিবীয় এই অলরাউন্ডার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
টস : মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স
চেন্নাই সুপার কিংস : ২১৮/৪ (২০ ওভার)
রাইডু ৭২*, মঈন ৫৮, ডু প্লেসিস ৫০
পোলার্ড ১২/২, বোল্ট ৪২/১

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স : ২১৯/৬ (২০ ওভার)
পোলার্ড ৮৭*, ডি কক ৩৮, রোহিত ৩৫
কারান ৩৪/৩, মঈন ১/১

ফল : মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ৪ উইকেটে জয়ী।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment