সাকিবকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন লিটন দাস!

20230617 191136

সদ্য সমাপ্ত আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে বাংলাদেশ দলে ছিলেন না সাকিব আল হাসান। লাল বলের ক্রিকেটে নিয়মিত এই অধিনায়ক না থাকায় শুরুতে একাদশ সাজানো নিয়ে কিছুটা জটিলতা থাকলেও পরবর্তীতে সেটা কেটে যায়। তবে সাকিবের না থাকা নিয়ে দলে কেমন প্রভাব পড়ে, তার উত্তর দিয়েছেন ম্যাচটিতে টাইগারদের নেতৃত্বে থাকা লিটন দাস।

তিনি বলেন, ‘দেখেন ম্যাচের আগে হয়তো এরকম ছিল সাকিব ভাই খেললে ভালো হতো। ম্যাচের পরে আসছে যে খেললে ভালো হতো কিনা। জিনিসটা এমন না, আপনার হাতে যা অস্ত্র আছে তাই ব্যবহার করতে হবে। কে থাকবে না থাকবে এটা নিয়ে চিন্তা করার সুযোগ নেই। হয়তো দুই বা চার বছর পর এমন দিন আসবে যখন সাকিব ভাই থাকবে না। বাংলাদেশ দলকে তো এগিয়ে যেতে হবে। আমি যে দলের হয়ে এই টেস্টে খেলেছি এটি বাংলাদেশের সেরা দল। তারা তাদের ভূমিকা পালন করেছে।’

ঢাকা টেস্ট জয়ের পর নিউজিল্যান্ডে টেস্ট জয়ের প্রসঙ্গ টানলেন লিটন, ‘নিউজিল্যান্ডে যে আমরা জিতেছি, একই কিন্তু। তামিম ভাই, সাকিব ভাই কেউই খেলেননি। আমরা তরুণ দল ছিলাম এবং দেশের বাইরে গিয়ে জিতেছি। আমরা যখন দেশের বাইরে গিয়ে জিতলাম আমাদের ভেতর একটা বিশ্বাস আসল যে, কষ্ট সাফল্য পাওয়ার হার বাড়ায়। সবাই এখন একটা ব্যাপারে মরিয়া যে কখন টেস্ট আসবে, কখন টেস্ট আসবে।’

‘আল্টিমেটলি ২-৩ বছর পরে গিয়ে তিন-চারজন সিনিয়র খেলোয়াড়কে পাবেন না। এখন থেকে এটা যদি সামলাতে না পারেন তাহলে হুট করে বদলে গেলে কঠিন। তারা খেললে ভালো হতো, কিন্তু এমন না যে ওখান থেকে আমরা কামব্যাক করতে পারব না। পাইপলাইন ও আমাদের ব্যাটিং অর্ডারে আস্তে আস্তে উন্নতি হচ্ছে। নতুন যারা আসছে তারা সামর্থ্যবান’, যোগ করেন লিটন।

টেস্ট ক্রিকেটে নিজের অধিনায়কত্ব নিয়ে লিটন বলেন, ‘চ্যালেঞ্জ না। যখন আপনার হাতে ভালো মানের ব্যাটার-বোলার থাকবে, তখন কাজটা সহজ হয়ে যায়। আমি মনে করি শান্ত আর জয় যেভাবে আক্রমণাত্মক মেজাজে ব্যাট করেছে সেটা খেলার ভিত অনেকটাই গড়ে দিয়েছিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছিল আমরা শক্ত অবস্থানে চলে যাচ্ছি, যদিও আমাদের প্রথম ইনিংসে বড় রান করার কথা ছিল। আমরা বাই চান্স কিছু সিলি মিসটেকের কারণে করতে পারিনি। তাই চ্যালেঞ্জ ছিল না, ওরকম কিছু ফেস করতে হয়নি। অধিনায়কত্ব তো করলামই কয়েকটা ম্যাচ, কাউকে ফলো করি না এখনও।’

You May Also Like