Matr

চরম দুঃসংবাদঃ জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে এই টাইগার বাহিনীর ১জন

২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় দলের বোলিং কোচ ছিলেন হিথ স্ট্রিক। মাশরাফি বিন মর্তুজাদের সাবেক এই গুরু দীর্ঘদিন ধরেই কোলন ও লিভারের ক্যান্সারে আক্রান্ত।

বর্তমানে তিনি কঠিন সেই ব্যধির চতুর্থ স্তরে আছেন। গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গের একটি হাসপাতালে চলছে স্ট্রিকের চিকিৎসা। জুয়াড়ির সঙ্গে যোগাযোগের দায়ে সাবেক এই জিম্বাবুইয়ান গতি তারকা ৮ বছরের নিষেধাজ্ঞায় রয়েছেন।

বাংলাদেশের সাবেক এই কোচের অসুস্থতা নিয়ে শনিবার (১৩ মে) একটি টুইট করেছেন জিম্বাবুয়ের ক্রীড়া মন্ত্রী কার্স্টি কভেন্ট্রি। তিনি লিখেছেন, ‌‘হিথ স্ট্রিক তার শেষ পর্যায়ে রয়েছেন। তার পরিবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার পথে…একমাত্র অলৌকিক কোনো ঘটনাই তাকে বাঁচাতে পারবে। প্রার্থনা করুন।’

দেশটির সাবেক শিক্ষা, ক্রীড়া, শিল্প ও সংস্কৃতি মন্ত্রী ডেভিড কোল্টার্ট লিখেছেন, ‘আমাদের দেশের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের একজন হিথ স্ট্রিক খুবই অসুস্থ এবং তার এখন আমাদের প্রার্থনা প্রয়োজন। অনুগ্রহ করে আমরা সবাই তার এবং তার পরিবারের জন্য প্রার্থনা করি।’

স্ট্রিককে জিম্বাবুয়ের সর্বকালের সেরা বোলার মনে করা হয়। সাদা পোশাকের ৬৫ ম্যাচে তার উইকেট ২১৬টি। ওয়ানডেতে ১৮৯ ম্যাচে পেয়েছেন উইকেট ২৩৯ টি। দুর্নীতি বিরোধী বিধির বেশ কয়েকটি ধারা ভঙ্গের দায়ে ২০২১ সালে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তাকে ৮ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে আইসিসি।

এর আগে ২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচ ছিলেন ৪৭ বছর বয়সী সাবেক এ তারকা। ২০১৬ সালের অক্টোবরে জিম্বাবুয়ে কোচের দায়িত্ব নেন তিনি। ২০১৮ সাল পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের কোচের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। কিন্তু জিম্বাবুয়ে ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হওয়ায় তাঁকে বরখাস্ত করা হয়। ২০১৮ সালের আইপিএলে তিনি কলকাতা নাইট রাইডার্সের বোলিং কোচের দায়িত্ব পালন করেন।

জিম্বাবুইয়ান কিংবদন্তির অসুস্থতার বিষয়ে ক্রীড়াভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজের সঙ্গে কথা বলেছেন দেশটির বর্তমান অধিনায়ক শন উইলিয়ামস। তিনি বলেন, ‘হিথের কোলন ও লিভারের ক্যান্সার এখন চতুর্থ স্তরে। এই পর্যায়ে আমি যা জানি তা হলো হিথের পরিবারকে দক্ষিণ আফ্রিকায় তার কাছে যাওয়ার জন্য ডাকা হয়েছে এবং আমি বিস্তারিত কিছু জানি না। আমি হিথকে মেসেজ করেছিলাম এবং সে সাড়া দিয়েছিল। কিন্তু আমি নিশ্চিত এই পর্যায়ে পরিবার গোপনীয়তা চাইবে। মনে হচ্ছে ক্যান্সার খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে, কারণ গত সপ্তাহে তিনি মাছ ধরছিলেন।’