৩৩ বছর পর শিরোপা জিতে আনন্দে শোকের ছায়া ম্যারাডোনার ক্লাবের

আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার হাত ধরেই ৩৩ বছর আগে ইতালিয়ান লিগে শিরোপার দেখা পেয়েছিল নাপোলি। বৃহ্স্পতিবার (৪ মে) রাতে তারা সিরি ‘আ’ লিগে সেই সময়েরই পুনরুত্থান করল। উদিনেসের মাঠে ১-১ ড্র করে পাঁচ ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা নিশ্চিত করেছে প্রয়াত কিংবদন্তির ক্লাবটি। এমন বিজয়ে নেপলস সমর্থকরা ম্যারাডোনাকে বর্ণাঢ্য আয়োজনে স্মরণ করছে। এই আর্জেন্টাইনের বিশাল সব ছবিকে উদযাপনের প্রতীকে পরিণত করেছে তারা। কিন্তু এমন আনন্দঘন মুহূর্তেও এসেছে শোকের খবর!

১৯৯০ সালের পর এমন অর্জনে স্বাভাবিকভাবেই উন্মাদনায় ভাসছে পুরো ইতালিয়ান শহরটি। উদিনেসের মাঠে হওয়া উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়ল নেপলসেও, বিশেষ করে নাপোলির মাঠে। ফুটবল ইতালিয়ার প্রতিবেদন অনুযায়ী, এ ম্যাচের জন্য ১০ হাজারের মতো নাপোলি সমর্থক হাজির ছিলেন প্রতিপক্ষের মাঠে। আর ৫০ হাজারেরও বেশি সমর্থক আরমান্দো স্টেডিয়ামে জমায়েত হয়ে জায়ান্ট স্ক্রিনে দেখেন খেলা।

ক্রীড়াভিত্তিক ওয়েবসাইট গোলডটকম বলছে, নাপোলির বিজয় ‍উদযাপনের সময় এক সমর্থক নিহত হয়েছেন। তবে ২৬ বছর বয়সী ওই সমর্থক কিভাবে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন সেটি জানা যায়নি। নিহত যুবককে উদ্ধার করা হয়েছে নেপলসের পিয়াজা ভল্টার্নো এলাকা থেকে। এছাড়া আরও অন্তত ২০৩ জন সমর্থক আহত হয়ে শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। তাদের মধ্যে আরও ৪ জনের শরীরে গুলি লেগেছে, ফলে নার্সের ছুরির নিচে যেতে হয়েছে তাদের।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সও এক প্রতিবেদনে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আহতদের মধ্যে কারও হাত আগুনে ঝলসানো, কাঁধ নড়ে যাওয়া, আঙুল ভাঙা কিংবা মচকানো আবার অতিরিক্ত ধোয়ার কারণে কারও চোখে সমস্যা, নাক ভেঙে যাওয়া ও অ্যাজমায় আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ২০ বছর বয়সী এক তরুণীকে নেপলসের ফ্র্যাটামাগোয়ের শহরের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, মাথায় মারাত্মক ক্ষতের কারণে মারা যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে তার। বন্ধুদের সঙ্গে তিনি রাস্তায় উদযাপনের সময় একটি কার তাকে ধাক্কা দেয় বলে জানা যায়।


তবে সব ছাপিয়ে নেপলস সমর্থকদের জয়োৎসবই সব আলো কেড়ে নিয়েছে। দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর তিন বছর পার না হতেই দীর্ঘ সাড়ে তিন দশকের শিরোপা কাটিয়েছে লিওনেল মেসিরা। কাতারে মরুর বুকে ঝড় তুলে তারা তৃতীয় বারের মতো সোনালী ট্রফি ছিনিয়ে এনেছেন। আর তারপরই নাপোলিরও ৩৩ বছরের শিরোপাখরা ঘুচল।