৪ বল ব্যাটিং করলেন মুস্তাফিজ, ফিজের কঠোর পরিশ্রমেও হার!

হাফ সেঞ্চুরির অপেক্ষায় ব্যাটিংয়ে জস বাটলার। রাজস্থান রয়্যালসের স্কোরবোর্ডে রান ২ উইকেট হারিয়ে ৮৭। কিন্তু তখনই ঘুরে গেল ম্যাচের মোড়।

রবিন্দ্র জাদেজার অসাধারণ এক ডেলিভারিতে বোল্ড বাটলার। ৪৯ রানে তার বিদায়ের পর মঈনের ঘূর্ণিতে দিশেহারা সঞ্জু স্যামসনের দল। শেষ পর্যন্ত ৪৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে চেন্নাই সুপার কিংস।

১৮৯ রানের বড় লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেন মনন ভোহরা এবং জস বাটলার। কিন্তু চতুর্থ ওভারে স্যাম কারানকে ছক্কা হাঁকানোর পরের বলে আবারও মারতে গিয়ে রবিন্দ্র জাদেজার হাতে ধরা পরেন ভোহরা। খানিক পর সঞ্জু স্যামসনও ফেরেন কারানকে উইকেট দিয়ে।

এক রানে রাজস্থান অধিনায়ক ফিরে গেলে হাল ধরেন বাটলার এবং শিভম দুবে। কিন্তু দলীয় ১১ ওভারে ৮৭ রান স্কোরবোর্ডে তোলার পর জাদেজার দারুণ এক বলে বোল্ড হন বাটলার। ৪৯ রানে তিনি ফেরার পর পাল্টে যায় ম্যাচের চিত্র। বোলিংয়ে এসে মঈন আলী তুলে নেন রিয়ান পরাগ, ডেভিড মিলার এবং ক্রিস মরিসকে।

এর আগে বাটলারকে ফিরিয়ে সেই ওভারে দুবেকেও বিদায় করেন জাদেজা।৮ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় রাজস্থান। জয়দেব উনাদকাট এবং রাহুল তেওয়াতিয়া শেষের দিকে লড়াই করলেও তা স্যামসনবাহিনীর জন্য যথেষ্ট ছিল না।

১৯তম ওভারে ব্রাভোকে জোড়া ছক্কা হাঁকিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তেওয়াতিয়া। শেষ ওভারে শার্দুল ঠাকুরের এক উইকেট তুলে ব্যাটিংয়ে আসেন মুস্তাফিজ। ঠাকুরে শেষ বল মুস্তাফিজ একটি রানও করতে পারেনি। ৪৫ রানের জয় পায় চেন্নাই।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৮৮ রানের পুঁজি পায় চেন্নাই। সর্বোচ্চ ৩৩ রান করেন ফাফ ডু প্লেসিস। এছাড়া মঈন আলী ২৬ এবং আমবাথি রাইয়ুডু করেন ২৭ রান। ৩৬ রান দিয়ে ৩ উইকেট নেন চেতন সাকারিয়া।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment