প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন মমিনুল এবং সাদমান, দেখে নিন সর্বশেষ স্কোর

শ্রীলঙ্কায় দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে দুই দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে টাইগাররা। গতকাল তামিম ইকবাল একাদশের করা ৩১৪ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে লাঞ্চে বিরতির আগে তিন উইকেট হারিয়ে ৮৯ রান সংগ্রহ করেছে সবুজ একাদশ। বল হাতে দুটি উইকেট তুলে নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।

তবে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন সাদমান ইসলাম, মমিনুল হক। প্রস্তুতি ম্যাচে ব্যাট হাতে ২৭ রান করে স্বেচ্ছায় অবসরে যান লিটন দাস। তবে এর পরেই সাদমান ইসলাম এবং মমিনুল হকের উইকেট তুলে নেন মেহেদী হাসান মিরাজ।
সাদমান ইসলাম করেছেন ১৯ রান এবং মমিনুল হক শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন। এছাড়াও আরেক ব্যাটসম্যান ইয়াসির আলী রাব্বি করেছেন ১৫ রান। মোহাম্মদ মিঠুন ১৯ এবং শুভাগত হোম ৫ রান করে অপরাজিত রয়েছেন।

গতকাল কাতুনায়েকের সিএমসিজি গ্রাউন্ডে নিজেদের ভেতরে আয়োজিত প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন ব্যাট হাতে আলো ছড়িয়েছিলেন তামিমের লাল দলের ব্যাটসম্যানরা। চার হাফ সেঞ্চুরি ও সোহানের ৪৮ রানে মাত্র ১ উইকেটে ৩১৪ রান তুলেছে তারা।

দিনের শেষ প্রান্তে মুমিনুল হকের সবুজ দলের একমাত্র প্রাপ্তি তাইজুল ইসলামের উইকেট। দিনের একমাত্র উইকেটটি পেয়েছেন শুভাগত হোম। মিরাজ অপরাজিত ছিলেন ২৪ রানে।

প্রস্তুতি ম্যাচে অনুশীলনটা মুখ্য। তামিম, সাইফ, শান্ত ও মুশফিকরা নিজেদের ঝালিয়ে নিয়েছেন ভালোভাবে। তামিম বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রান তুলেছেন। ৬৫ বলে তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে ৬৩ রান।

বেশিরভাগ রান নিয়েছেন বাউন্ডারি থেকে। ছিল দুইটি ছক্কার শটও। সাইফ স্বাভাবসুলভ সতর্ক ব্যাটিং করেছেন। রান তুলেছেন মন্থর গতিতে। ৯৪ বলে ৫২ রান তুলে সেচ্ছ্বায় ড্রেসিংরুমে যান ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

তিনে ও চারে নামা শান্ত ও মুশফিক কম সময়ে দ্রুত রান তুলেছেন। শান্ত ৫৩ এবং মুশফিক সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন। দুইজনের ইনিংসেই ছিল বাউন্ডারির ফোয়াররা। বোলারদের জন্য উইকেটে কিছু ছিল কি না বলা মুশকিল। তবে ধারাবাহিক বোলিং যে হয়নি তা স্কোরবোর্ডই বলে দিচ্ছে।

লাল দলের উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান সোহানও দ্রুত ৪৮ রান করেছেন। এরপর মিরাজ ও তাইজুল ব্যাটিং করেন। তাইজুল অবশ্য বেশিদূর যেতে পারেননি। ২ রানে তাকে উইকেটের পেছনে লিটনের হাতে তালুবন্দি করান শুভাগত হোম।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment