images 2023 01 31T115217.496

পিএসজি ছেড়ে যে গন্তব্যে যাচ্ছেন বিশ্বসেরা ফুটবলার লিও মেসি

আকাশ ছোঁয়া স্বপ্ন নিয়ে ফুটবল খেলা শুরু করেন রোজারিওর এক ছোট্ট ছেলে। তার স্বপ্ন ছিল তৎকালীন আর্জেন্টাইন গ্রেট ডিয়াগো ম্যারাডোনার মতো ফুটবলার হওয়ার। সময়ের পালাবদলে তিনিই এখন আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় প্রতিনিধি। ডিয়াগো ম্যারাডোনার যোগ্য উত্তরসূরী। কথা বলা হচ্ছে ইতিহাস সেরা ফুটবলার লিওনেল মেসির।

২০২২ সালে বিশ্বকাপ জিতে নিজের ক্যারিয়ারকে পরিপূর্ণতার শিখরে নিয়ে গিয়েছেন। কোনো অপ্রাপ্তিই যেন নেই এই ক্যারিয়ারে। লিওনেল মেসির ১৬ বছরের এই ক্যারিয়ার যেন কোনো ফুটবলারের ক্যারিয়ার নয় একজন সম্রাটের রাজত্বকাল। সাফল্যের ষোল কানা পূরণ করা এই সম্রাট আপাতত ব্যস্ত নিজের নতুন ডেরা খুঁজতে। ফ্রেঞ্চ পত্রিকাগুলো থেকে অনেক আগেই জানা গিয়েছিল পিএসজির সাথে চুক্তিবৃদ্ধি করতে আর আগ্রহী নয় বিশ্বসেরা ফুটবলার।

এই মৌসুমে শেষ হওয়া চুক্তির মেয়াদ আরো বারো মাস বৃদ্ধি করার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছিল পিএসজি কর্তৃপক্ষ। তবে লিওনেল মেসি এই ব্যাপারে সায় দেয়নি। বিশ্বকাপ জেতার পর মেসির মানসিকতার অনেকটাই পরিবর্তন ঘটেছে। তিনি এখন বিভিন্ন বিষয়কে ভিন্নভাবে দেখার চেষ্টা করছেন।

পিএসজির টিম ম্যানেজমেন্টের সাথেও খুব একটা বনি বনা হচ্ছে না এই ফুটবলারের। এছাড়াও কাতার বিশ্বকাপ জেতার মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ারকে ষোলকানা পূর্ণ করেছেন ফলে এখন প্যারিসে তেমন কিছু জেতার ব্যাপারে অনুপ্রেরণাও পাচ্ছেন না এল এম টেন। লিওনেল মেসি কোন ক্লাবে যেতে পারেন এই নিয়ে ইতিমধ্যেই নানা জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

আচমকাই আর্জেন্টাইন এই গ্রেটের পিএসজির সাথে চুক্তি না করার সিদ্ধান্তটা বেশ কিছু শীর্ষ ক্লাবকে এক ধরনের প্রতিযোগিতায় ঠেলে দিয়েছে। শীর্ষ অনেকগুলো ক্লাবই এখন মেসিকে নিজেদের সেটাপে অন্তর্ভুক্ত করতে চাচ্ছে। রোনাল্ডোর ক্লাব আল নাসিরের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী আল হেলাল তো সরাসরি অর্থসহ চুক্তিপত্র প্রকাশ্যে নিয়ে এসেছে।

রোনালদোকে ১৭৩ মিলিয়ন ডলারের কন্ট্রাক্ট দিয়েছিল আল নাসির। যা তাকে বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ফুটবলারের তকমা দিয়েছে। তবে মেসিকে রোনালদোর চেয়েও প্রায় ৩০% বেশি বেতন দিতে প্রস্তুত আল হেলাল। আল হেলালের পক্ষ থেকে প্রায় ২৪৩ মিলিয়নের চুক্তি প্রস্তাব করা হয়েছে লিওনেল মেসিকে। সৌদি আরবের এক গণমাধ্যম এমনটিও প্রকাশ করেছে যে মেসির বাবা চুক্তির ব্যাপারে কথা বলতে রিয়াদে এসেছিলেন।

শেষ পর্যন্ত মেসির সৌদিতে পাড়ি দেওয়া অনেক যদি কিন্তুর উপর নির্ভর করছে। ইউরোপের ফুটবলে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও সৌদিতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়তো শেষ পর্যন্ত নিবেন না লিওনেল মেসি। তবে সম্ভাবনা একটা অবশ্যই রয়েছে। আর সেই সম্ভাবনা যদি সত্যি হয় তাহলে রোনালদো-মেসির দ্বৈরথ আবারো দেখার সুযোগ পাবে বিশ্ববাসী। আল হেলালের পর মেসির ভবিষ্যৎ গন্তব্য হিসেবে যে ক্লাবটির কথা সবচেয়ে বেশি শোনা যাচ্ছে সেটি ইন্টার মায়ামি। ইন্টার মায়ামির মালিক আর কেউ নয় বিশ্ব বিখ্যাত ফুটবলার ডেভিড বে্কহাম।

নিজের সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার ছিলেন বে্কহাম। নিজের স্টাইল এবং সুদর্শন আকৃতির সৌজন্যে মিডিয়াতে থাকতেন হারহামেশাই। মেসির শুরুর দিকের সময়গুলোতে খেলোয়ার হিসেবেও মেসিকে পেয়েছিলেন বে্কহাম।

সেখান থেকে দুজনে বন্ধুত্বটাও পাকা হয়। ব্যক্তিগতভাবে মেসিকে নিজের ক্লাবে নিয়ে আসার ব্যাপারে কথাবার্তা চালাচ্ছেন সাবেক এই ফুটবলার। এছাড়াও ২০২০ সালে এক সাক্ষাৎকারে মেসি বলেছিলেন আমেরিকাতে ফুটবল খেলার ইচ্ছা রয়েছে তার। পরবর্তীতে ৭.৩ মিলিয়ন ডলারে মায়ামিতে একটি বিলাসবহুল এপার্টমেন্টও ক্রয় করেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

সব মিলিয়ে বেশ ভালো সম্ভাবনা রয়েছে পুরনো বন্ধু ডেভিড বে্কহামের ক্লাব ইন্টার মিয়ামিতে নাম লেখাবেন মেসি। নিজের ক্যারিয়ারের শেষের সময়টুকু আর্জেন্টিনায় ক্লাব ফুটবল খেলতে চায় মেসি এমনও শোনা যাচ্ছে। এমনকি সাবেক ক্লাব বার্সাতেও মেসি ফিরতে পারেন এই খবরও ফলাও করে ছাপা করেছে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক মিডিয়া। সবমিলিয়ে মেসির ভবিষ্যৎ গন্তব্য এখনো অনেক যদি কিন্তুর উপরই ঝুলে রয়েছে। তবে সম্ভাবনা প্রবল ইউরোপের ফুটবল ছেড়ে আমেরিকা কিংবা সৌদিতে পাড়ি জমাবেন আর্জেন্টাইন এই গ্রেট।