মেসি বিশ্বকাপের পর অবসর নিবেন নাকি খেলবেন জানালেন কোচ স্কালনি

দেখতে দেখতে বিশ্বকাপ এখন শেষের পথে। তৃতীয় স্থান নির্ধারণী, দুই সেমিফাইনাল এবং ফাইনাল মিলিয়ে আর বাকি মাত্র ৪ ম্যাচ। আর্জেন্টিনা সেমিফাইনালে উঠেছে। কথাটা সে কারণেই হয়তো বেশি করে মনে পড়ছে। সেমিফাইনালের আগে আজ আর্জেন্টিনার সংবাদ সম্মেলনেও কথাটা উঠল—লিওনেল মেসির এটাই কি শেষ বিশ্বকাপ?

লুসাইল স্টেডিয়ামে কাল বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত একটায় বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনা এই ম্যাচ জিতলে কাতার বিশ্বকাপে আর একটি ম্যাচই পাবে। সেটি ফাইনাল। তারপর?

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই মেসি বলে রেখেছেন, এটাই সম্ভবত তাঁর শেষ বিশ্বকাপ। ৩৫ বছর বয়সী মেসি কি সেই সিদ্ধান্ত পাল্টাবেন? স্কালোনি সংবাদ সম্মেলনে জানালেন, ‘দেখা যাক সে (জাতীয় দলের হয়ে) খেলা চালিয়ে যায় কি না। তখন আমরা নিশ্চিত হতে পারব, তার খেলাটা উপভোগ করে যেতে পারব কি না।’

কাতার বিশ্বকাপের আগে এই টুর্নামেন্টে চারবার সেমিফাইনাল খেলে একবারও হারেনি আর্জেন্টিনা। ১৯৩০,১৯৮৬, ১৯৯০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠে প্রতিবার ফাইনালের টিকিট পেয়েছে আর্জেন্টিনা। এই ম্যাচ নিয়ে স্কালোনি তবু সাবধানী। জানালেন, শুধু কালকের ম্যাচ নিয়েই ভাবছেন, ‘গোটা দেশের সমর্থন আছে আমাদের। আমরা ম্যাচ ধরে ধরে এগোতে চাই। এর বেশি কিছু ভাবতে চাই না।’

রদ্রিগো দি পল ও আনহেল দি মারিয়ার চোট নিয়েও কথা বলেছেন স্কালোনি। আর্জেন্টিনা কোচ জানিয়েছেন, দুজনেই ভালো আছেন। এখন সুস্থ। তবে কে কত মিনিট মাঠে থাকবেন কিংবা থাকবেন কি না, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। স্কালোনির ভাষায়, ‘আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেব। দুজনেই ভালো আছে।’

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচে উত্তেজনা ছড়িয়েছিল। ম্যাচে একপর্যায়ে উত্তেজনার বশে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন দুই দলের খেলোয়াড়। মেসি নিজেও ডাচ কোচ লুই ফন গালকে খুঁচিয়েছেন।

টাইব্রেকারে জেতা সেই ম্যাচের বিতর্ক নিয়ে স্কালোনি বলেছেন, ‘নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচটা যেভাবে খেলার দরকার ছিল, সেভাবেই খেলেছি…কীভাবে জিততে হয় সেটা আমরা জানি না—এমন কথা আমি মানি না। আমরা নেদারল্যান্ডস, ক্রোয়েশিয়া—সবাইকে সম্মান করি এবং মাঠের ঘটনা মাঠেই রেখে আসি।’

রক্ষণে চার ডিফেন্ডার খেলালে নিকোলাস তালিয়াফিকোকে একাদশে রাখবেন স্কালোনি। আর ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের কৌশল?

স্কালোনি জানিয়েছেন, ‘নেদারল্যান্ডস, অস্ট্রেলিয়া ও পোল্যান্ডের বিপক্ষে যেমন প্রস্তুতি নিয়েছিলাম, তেমন প্রস্তুতিই থাকবে। সৌদি আরবের কাছে হারের পর থেকেই সব ম্যাচ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সবাই জানে আমরা নিজেদের সেরাটাই দেব।’

x

You May Also Like