ভারত পাকিস্তান ম্যাচে ফিক্সিং? এলো নতুন তথ্য!

গত রোববার অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে মোহাম্মদ নওয়াজের করা শেষ ওভারের তৃতীয় বলটি কি ‘নো’ ছিল?

এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক তারকা ক্রিকেটার ব্র্যাড হগ এবং পাকিস্তানের সাবেক তারকা পেসার শোয়েব আখতারসহ অনেক সমর্থক প্রশ্ন তুলেছেন।

সেই ম্যাচে শেষ ওভারে ভারতের প্রয়োজন ছিল ১৬ রান। শেষ তিন বলে কোহলিদের করতে হতো ১৩ রান। চতুর্থ বলটি ফুলটস দেন নওয়াজ। সেই বলে ডিপ স্কয়ার লেগের ওপর দিয়ে ছক্কা হাঁকান কোহলি। ছক্কার সঙ্গে সঙ্গে আম্পায়ার নো বলের সংকেত দেন।

আইসিসির ৪১.৭.১ ধারা বলছে, যদি কোনো ডেলিভারি পিচ না করে পপিং ক্রিজে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা স্ট্রাইকারের কোমর উচ্চতার ওপরে ওঠে, আম্পায়ার তাৎক্ষণিকভাবে “নো” বলের সংকেত দেবেন।

তবে ‘নো’ বলের সূত্র ধরে পরের বলটি ছিল ফ্রি হিট। এই বলটি ব্যাটে-বলে করতে পারেননি কোহলি। বল আঘাত হানে স্টাম্পে। স্টাম্পে লেগে বল চলে যায় থার্ড ম্যানে, সেখান থেকে শাহিন শাহ আফ্রিদি ফিল্ডিং করে পাঠানোর আগে দৌড়ে ৩ রান নেন কোহলি-কার্তিক।

এই বল নিয়েও বিতর্ক আছে। আইসিসির ২১.১৯.২ ধারা বলছে, ফ্রি হিটে ব্যাটসম্যান আউট হবেন, যদি “নো” বলে যেসব আউট হয় সেই ধরনের উপাদান পাওয়া যায়। এমনকি ফ্রি হিটটি যদি ওয়াইডও হয়।

‘নো’ বলে ব্যাটসম্যান আউট হতে পারেন তিনভাবে। রানআউট, অবস্ট্রাকটিং দ্য ফিল্ড বা ফিল্ডিংয়ে বাধা এবং বলে ডাবল বা ট্রিপল হিটে। কোহলি এসবের কোনোটি হননি।

ফ্রি হিটে বোল্ড হওয়ার পর বাই রান নেওয়ারে বিধান হলো- ক্রিকেটের আইন প্রণয়নকারী সংস্থা এমসিসির নিয়ম বলছে- একটি বল “ডেড” ঘোষণা করা হবে যখন বলটি উইকেটকিপার বা বোলারের হাতে যাবে অথবা বাউন্ডারি হবে। ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার মতো ঘটনা ঘটলেও বলটি ডেড হবে।

ফ্রি হিট হওয়ায় এই বলে আউট হননি কোহলি। বল উইকেটকিপার মোহাম্মদ রিজওয়ান বা বোলার নেওয়াজের কাছেও যায়নি। যে কারণে স্টাম্পে লেগে থার্ড ম্যানে চলে যাওয়ায় সেখান থেকে ফিরে আসার আগেই ৩ রান নিয়ে নিতে পেরেছেন ব্যাটসম্যানরা।

You May Also Like