মাত্র পাওয়া : টাইগার ভক্তদের কাছে শ্রীরামের অনুরোধ

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশ ধুঁকছে অনেক দিন ধরেই। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে ভোগান্তি হচ্ছে যেন আরও বেশি। সেবার প্রাথমিক পর্বে স্কটল্যান্ডের কাছে হারার পর গ্রুপের শেষ ম্যাচ জিতে মূল পর্বে পা রাখতে পারে দল। এরপর মূল পর্বে হেরে যায় সব ম্যাচেই। বিশ্বকাপের পরও দল কেবল ছুটছে পেছন পানেই।

নিউ জিল্যান্ডে চলতি ত্রিবিশ্বকাপেই উত্তর মিলবে সব প্রশ্নের। বাংলাদেশ দলটাও ঠিকঠাক দাঁড়িয়ে যাবে। ভবিষ্যতে ভালো করার সব রসদও মজুদ আছে। এই মুহূর্তে এসব শুনলে চোখ কপালে উঠতে পারে অনেকের। তবে শ্রীধরন শ্রীরামের প্রতিশ্রুতি দিলেন এই সবকিছুর। বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল কনসালটেন্টের স্রেফ অনুরোধ, সংবাদমাধ্যম ও সমর্থকেরা যেন ভরসা রাখেন দলের ওপর।দেশীয় সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেও সঙ্গী হয়েছে পরাজয়। খুব বেশি উন্নতি বা লড়াইয়ের ছাপ ছিল না কোনো ম্যাচেই। কদিন পর বিশ্বকাপে তাকিয়েও খুব বেশি কিছু আশা করা কঠিন এই দলকে নিয়ে।

দলের এমন পারফরম্যান্সে স্বাভাবিকভাবেই সংবাদমাধ্যমে সমালোচনা চলছে। সামাজিক মাধ্যমে সমর্থকদের ট্রল-তাচ্ছিল্য-হতাশার পালা তো চলছেই।

এসব দলকেও স্পর্শ করার কথা। শ্রীরামেরও তা বুঝতে পারার কথা। উপমহাদেশের একজন হিসেবে এখানকার ক্রিকেটীয় আবেগ-অনুভূতির কথা জানেন তিনি ভালো করেই। নিউ জিল্যান্ডে মঙ্গলবার অনুশীলনের ফাঁকে বিসিবির ভিডিও বার্তায় সাবেক এই ভারতীয় অলরাউন্ডার অনুরোধ করলেন সবাইকে দলের ওপর আস্থা রাখতে।

“সব সমর্থক ও মিডিয়াকে আমি অনুরোধ করছি, আমাদের পাশে থাকুন। এটা দেশের ব্যাপার, সবার আবেগের ব্যাপার। আমি নিশ্চিত করতে পারি, দেশের জন্য গৌরব বয়ে আনতে ছেলেরা নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। এই দলের আমাদের মূল্যবোধগুলোর একটি হলো বাংলাদেশকে গর্বিত করা ও সমর্থকদের জন্য জয় এনে দেওয়া।”

গত অগাস্টে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি দলের দায়িত্ব নেন শ্রীরাম। রাতারাতি কোনো দলকে পাল্টে দেওয়া সব কোচ-পরামর্শকের জন্যই কঠিন। শ্রীরাম যোগ দেওয়ার পরও দৃশ্যত উল্লেখযোগ্য উন্নতি এখনও পর্যন্ত দেখা যায়নি। তার চুক্তির মেয়াদ আপাতত বিশ্বকাপ পর্যন্তই। ভবিষ্যতের তারে রাখা হবে কিনা বা রাখতে চাইলেও তিনি থাকবেন কিনা, সেই নিশ্চয়তা নেই। তবে ভবিষ্যতে দলের জন্য ভালো কিছু অপেক্ষা করছে বলেই বিশ্বাস তার। এমনকি আশার আলো দেখালেন তিনি বিশ্বকাপের জন্যও।

“আমি চাই ধৈর্য ধরে রাখতে। মৌলিক একটা স্কোয়াড আমরা পেয়ে গেছি, যারা ভবিষ্যতে ভালো করবে। বিশ্বকাপের অপেক্ষায়ও আছি আমরা। সবকিছুর উত্তর পাব আমরা, দল ঠিকঠাক করে ফেলব। যে ব্র্যান্ডের ক্রিকেট আমরা খেলব, নিশ্চিতভাবেই বাংলাদেশকে আমরা গর্ব উপহার দেব।”

২৪ অক্টোবর শুরু হবে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অভিযান। এর আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ ব্রিজবেনে আফগানিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

x

You May Also Like