হলান্ড নাকি মেসি কে সেরা; জানালেন মেসির সাবেক কোচ গার্দিওলা

ম্যানচেস্টার সিটির কোচ হিসেবে খুব কাছে থেকে আর্লিং হলান্ডের কীর্তি দেখছেন পেপ গার্দিওলা। নরওয়েজিয়ান গোলমেশিন একের পর এক চোখধাঁধানো পারফরম্যান্সে মুগ্ধ করে চলেছেন ফুটবলবিশ্বকে। এর আগে বার্সেলোনার কোচ হিসেবে লিওনেল মেসিকেও কাছে থেকে দেখেছেন এই স্প্যানিশ কোচ। সেই অভিজ্ঞতা থেকেই বলেছেন দুজনের পার্থক্যের কথা। যেখানে এগিয়ে রাখছেন মেসিকেই।

রেডবুল সালজবুর্গের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আলো ছড়িয়ে ফুটবল বিশ্বকে নিজের আগমনের কথা জানান নরওয়ের স্ট্রাইকার আর্লিং ব্রাউট হলান্ড। এরপর বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ঘুরে এখন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ম্যানসিটির হয়ে মাঠ কাঁপাচ্ছেন তিনি। সবশেষ ম্যাচে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে ৬-৩ গোলের জয়ে করেছেন হ্যাটট্রিক। যা ম্যানসিটির ঘরের মাঠ ইতিহাদে তার টানা তৃতীয় হ্যাটট্রিক। প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে এমন রেকর্ড নেই আর কারও।

প্রিমিয়ার লিগে ৮ ম্যাচ খেলে সাতটিতেই পেয়েছেন গোলের দেখা। তার মধ্যে আছে টানা ছয় ম্যাচে গোল। এখন পর্যন্ত লিগে ১৪ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনিই। সব প্রতিযোগিতা হিসেবে নিলে সিটির জার্সিতে ১১ ম্যাচে ১৭ গোল তার।

প্রিমিয়ার লিগে কতটা খুনে ফর্মে আছেন এই স্ট্রাইকার তা বোঝা যাবে একটা তথ্য দিলেই। গত ৩ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কার গোল্ডেন বুট জিততে জেমি ভার্ডি, হ্যারি কেইন, মোহামেদ সালাহ ও সন হিউং মিন করেছিলেন ২৩টি করে গোল। অথচ এ মৌসুমের এক চতুর্থাংশের বেশি বাকি থাকতেই ১৪ গোল করে ফেলেছেন হলান্ড। তাদের সমান গোল করতে আর মাত্র ৯টি গোল দরকার এই ২২ বছর বয়সীর।

পেপ গার্দিওলার অধীনে ২০১১-১২ মৌসুমে লিগে ৫০ গোল করেছিলেন লিওনেল মেসি। এটাই শীর্ষ পাঁচ ইউরোপিয়ান লিগে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। সব মিলিয়ে সে মৌসুমে ৯২ গোলের রেকর্ড গড়েছিলেন ভিনগ্রহের ফুটবলার খ্যাত মেসি। তবে কী গার্দিওলার অধীনে মেসির কীর্তির পুনরাবৃত্তি ঘটাবেন হলান্ড?

এমন প্রশ্নে অবশ্য সরাসরি উত্তর না দিয়ে গার্দিওলা তুলে ধরেছেন মেসির সঙ্গে হলান্ডের পার্থক্য। তিনি বলেন, ‘দুজনের মধ্যে পার্থক্য হচ্ছে, হয়তো গোল করার জন্য হলান্ডের তার সতীর্থদের প্রয়োজন হয়। যদিও এটা অবিশ্বাস্য। তবে মেসির একাই এসব কিছু করার সামর্থ্য আছে।’

সেই সঙ্গে শিষ্যের পারফরম্যান্সে যে এখনো পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারেননি তাও জানিয়েছেন এই স্প্যানিয়ার্ড। তিনি বলেন, ‘ সে (হলান্ড) বলেছে, ‘আমি ৫ বার বল স্পর্শ করে, ৫টিতেই গোল করাকে প্রাধান্য দিই। এটা আমার পছন্দ না। আমি চাই সে আরও বেশি করে বল স্পর্শ করুক।’

মেসি-রোনালদোর পর্যায়ে পৌছাতে যে এখনো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে তাও জানিয়েছেন কোচ। এমন পারফরম্যান্স ধরে রাখার পাশাপাশি শিরোপা জিততেও রাখতে হবে বড় অবদান। তবে এখন পর্যন্ত যে ভাবে এগোচ্ছেন ২২ বছর বয়সী তারকা তাতে তাকে নিয়ে আশায় বুক বাঁধাই যায়।

x

You May Also Like