অবশেষে ওপেনিংয়ে সমাধান পেতে যাচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট

বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে ওপেন নিয়ে কোনো সমাধান করতে পারেনি ম্যানেজমেন্ট। তবে আমাদের নজরের রয়েছে দুইজন ওপেন করার মতো ব্যাটিং লিটন দাস ও সৌম্য সরকার। লিটন ওয়ানডেতে ওপেন করলেও সৌম্য সরকার ধারাবাহিক ভাবে দলে সুযোগ পাচ্ছে না।

সবশেষ বঙ্গবন্ধু টি২০ কাপে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের হয়ে ওপেনে নেমেছিলেন সৌম্য সরকার ও লিটন দাস। সেই টুর্নামেন্টে সৌম্য সরকার প্রায় ৩০ গড়ে করেছিলেন ২৯২, স্ট্রাইকরেট ১২৬(প্রায়)। ছিলো ২ ফিফটিও।

অন্যদিকে লিটন দাস প্রায় ৫০ গড়ে করেছিলেন ৩৯৩ রান। স্ট্রাইকরেট ১২০ ছিলো। ফিফটি ছিলো ৩টি। ওপেনে সেই টুর্নামেন্টে এই জুটি ম্যাচ প্রতি সংগ্রহগুলো ছিলো এমন,

৭৯(৯.৪), বিপক্ষ ঢাকা
৭৩(১০.৫), বিপক্ষ খুলনা
২২(২.৪), বিপক্ষ বরিশাল
৬২(৭.২), বিপক্ষ রাজশাহী
১(০.৩), বিপক্ষ ঢাকা
৬(১.১), বিপক্ষ খুলনা
১২২(১৪.৩), বিপক্ষ রাজশাহী
১৩(১), বিপক্ষ খুলনা
৪৪(৭), বিপক্ষ ঢাকা
২৬(৩.৩), বিপক্ষ খুলনা।

বলাই বাহুল্য, এই জুটির দ্রুত রান তোলার প্রতি ঝোক আছে। তবে আফসোস এই যে বিসিবি এই জুটিকে সেভাবে ব্যবহার করেনি। মাত্র ২ বার নামিয়েছে ওপেনে। তাও আবার ২ বছর পর পর।

যেখানে একটি আদর্শ সমাধান হতে পারতো এই জুটি, সেখানে তাদেরকে ওপেনে নামানোর চিন্তাও করেনি ম্যানেজমেন্ট। অথচ বোঝা পড়া না থাকা ডিফেন্সিভ ওপেনার নাঈম শেখ বা এনামূল হক বিজয়দের সুযোগ দিয়েছে বারবার।

বিশেষ করে যে বিজয় ব্যাটে বলও ঠিকমতন লাগাতে পারে না, তার উপর যেন বেশীই সুনজর ম্যানেজমেন্টের। অন্যদিকে ওপেন নিয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্চে মিরাজ-সাব্বিরদের নিয়ে। মিরাজ মোটামোটি ভালোপ করলেও সাব্বির তেমন কোনো আশা রুপ ওপেনে ভালো করতে পারিনি।

অথচ বাংলাদেশের হয়ে টি২০তে হাজার রান করা সৌম্য আর লিটনের উপর সেটা নেই। বলছিনা রাতারাতি সেঞ্চুরি এনে দিবে, কিন্তু যেহেতু তারা একটা টুর্নামেন্টে নিজেদের ভালো বোঝাপড়া বুঝিয়েছে সেহেতু তাদের সুযোগটা দেওয়াই যেতো।

x

You May Also Like