সোহানেকে আবারো সুযোগ দিলো বিসিবি; দুবাই যাচ্ছে বাংলাদেশ দল

অধিনায়ক থাকার সময় চোট পেয়ে ছিটকে গিয়েছিলেন নুরুল হাসান সোহান। অধিনায়ক হিসেবেই তিনি ফিরছেন মাঠের লড়াইয়ে। সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে সিরিজে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবেন এই কিপার-ব্যাটসম্যান, যিনি নিয়মিত সহ-অধিনায়ক।

সোহানের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের দল দুবাইয়ের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায়। বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ক্যাম্পের পাশাপাশি এই সফরে আরব আমিরাতের সঙ্গে দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজও খেলবে বাংলাদেশ।

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচ দুটি হবে আগামী রোববার ও মঙ্গলবার। সিরিজের আনুষ্ঠানিক নাম ‘ফ্রেন্ডশিপ টি-টোয়েন্টি সিরিজ।’ সফরের বাকি দিনগুলিতে দুবাই স্পোর্টস সিটিতে অনুশীলন করবে দল।

এই সিরিজ চূড়ান্ত করার সময়ই বিসিবি থেকে জানানো হয়েছিল, বিশ্বকাপের মূল দলের সঙ্গে ‘স্ট্যান্ড বাই’ তালিকায় থাকাদেরও পাঠানো হবে আমিরাতে এই সফরে। তবে স্ট্যান্ড বাই চারজনের মধ্যে শেখ মেহেদি হাসান পারিবারিক কারণে যেতে পারছেন না। বাকি তিনজন- সৌম্য সরকার, শরিফুল ইসলাম ও রিশাদ হোসেন যাচ্ছেন দলের সঙ্গে।

২০ বছর বয়সী লেগ স্পিনার রিশাদ তাই প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ দলে ডাক পেলেন বলা যায়। সম্প্রতি এশিয়া কাপে তিনি দলের সঙ্গে গিয়েছিলেন অনুশীলনে সহায়তার জন্য। আগেও নানা সময়ে দেশে অনুশীলন ক্যাম্পে তাকে রাখা হয়েছে।

আরব আমিরাতে বাংলাদেশের এই সফরটিতে অনুশীলন ক্যাম্পেরই পরিকল্পনা ছিল বিসিবির। সঙ্গে সুযোগ খোঁজা হচ্ছিল প্রস্তুতি ম্যাচের। আমিরাতের বোর্ড তখন প্রস্তাব দেয় দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার। বিসিবি তা লুফে নেয়।

হুট করে ঠিক হওয়া সিরিজে যে সাকিবকে পাওয়া যাবে না, এই ইঙ্গিত আগেই দিয়েছিলেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস। ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) খেলার জন্য তাকে আগেই ছুটি দিয়ে রেখেছিল বিসিবি। সাকিব এর মধ্যেই যোগ দিয়েছেন গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স দলের সঙ্গে।

জালাল ইউনুস বুধবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বললেন, সিপিএল খেলে সাকিবের প্রস্তুতি ভালো হবে বলেও ধারণা তার।

“সাকিবকে পেলে ভালো হতো অবশ্যই। গোটা দল একসঙ্গে থাকতে পারলে সবসময়ই ভালো। তবে তাকে তো আমরা আগেই ছুটি দিয়েছি। হুট করে তার জন্যও ম্যানেজ করা কঠিন। একটা ভালো ব্যাপার হলো, সে খেলার মধ্যেই থাকবে, যথেষ্ট কোয়ালিটি ক্রিকেটই হবে ওখানে। সেদিক থেকে প্রস্তুতি তারও ভালোই হবে আশা করি।”

জাতীয় দলের কোচিং স্টাফের সবাইকেও এই সফরে পাওয়া যাবে না। জালাল ইউনুস জানালেন, পারিবারিক কারণে বোলিং কোচ অ্যালান ডোনাল্ড থাকছেন না এখানে। তিনি সরাসরি দলের সঙ্গে যোগ দেবেন নিউ জিল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজে। কোচিং স্টাফের বাকিরা থাকবেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরের বাংলাদেশ দল: নুরুল হাসান সোহান (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, লিটন দাস, ইয়াসির আলি চৌধুরি, হাসান মাহমুদ, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, নাসুম আহমেদ, ইবাদত হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, শরিফুল ইসলাম, সৌম্য সরকার, রিশাদ হোসেন।

You May Also Like