সিপিএল : সাকিবের গায়ানা সিপিএলে ভালো করতে পারছে না

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) ক্রিকেটে খেলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে আগেই অনাপত্তিপত্র নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে সম্প্রতি দুবাইয়ে জাতীয় দলের বিশেষ অনুশীলন ক্যাম্পের সূচি নির্ধারিত হওয়ায় একপ্রকার শঙ্কা জেগেছিল, সাকিবের সিপিএলে অংশগ্রহণ নিয়ে।

সেই শঙ্কাও কেটে গেছে। দুবাইয়ে জাতীয় দলের অনুশীলন ক্যাম্পে থাকবেন না সাকিব। বরং এ সময়ে সিপিএল খেলার জন্য এরই মধ্যে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্স শিবিরে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশ দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। তিনি পরের ম্যাচ থেকেই খেলবেন।

তবে টুর্নামেন্টে মোটেও ভালো অবস্থানে নেই গায়ানা। বলা চলে প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায়ও একপ্রকার নিশ্চিত হয়ে গেছে তাদের। এখন পর্যন্ত খেলা ছয় ম্যাচের চারটিই হেরেছে তারা। এক জয়ের দুই পয়েন্টের সঙ্গে পরিত্যক্ত ম্যাচের একটি পয়েন্ট পেয়েছে দলটি।

সবশেষ রোববার রাতে বার্বাডোজ রয়্যালসের বিপক্ষে ২৯ রানে হেরেছে গায়ানা। বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে বার্বাডোজকে হারাতে ১৬ ওভারে ১১১ রান প্রয়োজন ছিল গায়ানার। কিন্তু নির্ধারিত ১৬ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ৮১ রানের বেশি করতে পারেনি তারা।

ঘরের মাঠে গায়ানার শেষ চার ম্যাচে খেলবেন সাকিব। জাতীয় দলের ডাকে চলে যাচ্ছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বাঁহাতি লেগস্পিনার তাবরাইজ শামসি। তার জায়গায়ই দলে ঢুকছেন সাকিব। এবারই প্রথমবারের মতো গায়ানার হয়ে খেলবেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

উল্লেখ্য, সিপিএলে সাকিবের অতীত ইতিহাস বেশ সমৃদ্ধ। ২০১৬ সালে জ্যামাইকা তালাওয়াজ ও ২০১৯ সালে বার্বাডোজ রয়্যালসের হয়ে শিরোপা জিতেছেন তিনি। এছাড়া ২০১৩ সালের আসরে এক ম্যাচে মাত্র ৬ রানে ৬ উইকেট নেন সাকিব। যা এখনও সিপিএল ইতিহাসের সেরা বোলিং ফিগার।

You May Also Like