অস্ট্রেলিয়া,পাকিস্তান ও ভারতের মাটিতে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ

আইসিসির এফটিপি জানাচ্ছে, আগামী চার বছরে মাঠে সাকিব-তামিমদের বেশ ব্যস্ত সময় পার করতে হবে। এই সূচিতে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে ২০০৩ সালের পর প্রায় দুই যুগ পর টেস্ট খেলতে অস্ট্রেলিয়া সফর করবে টাইগাররা।

আগামী দুই চক্রের জন্য বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম (এফটিপি) চূড়ান্ত করে ফেলেছে। ১৭ আগস্ট (বুধবার) আইসিসির পক্ষ থেকে এই বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। আইসিসির এফটিপি জানাচ্ছে, আগামী চার বছরে মাঠে সাকিব-তামিমদের বেশ ব্যস্ত সময় পার করতে হবে। এই সূচিতে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে ২০০৩ সালের পর প্রায় দুই যুগ পর টেস্ট খেলতে অস্ট্রেলিয়া সফর করবে টাইগাররা।

নতুন এফটিপি অনুযায়ী, ২০২৩ সালের জুনে আয়ারল্যান্ড সফর করবে টাইগাররা। এরপর ঘরের মাঠে আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুইটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুইটি টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ। ২০২৪ সালেও বাংলাদেশের জন্য বেশ ব্যস্ত সূচি। ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিলের মধ্যে শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়েকে আতিথেয়তা দেবে বিসিবি। আর বছরের মধ্যভাগে টেস্ট খেলতে দেশের বাইরে সফর করতে হবে সাকিব আল হাসানদের। এই সময় আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও ভারতের মুখোমুখি হবে টাইগাররা।

আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিনয়শিপের ২০২৩-২০২৫ চক্রে তিনটি হোম ও তিনটি অ্যাওয়ে সিরিজ খেলবে টাইগাররা। ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে আতিথেয়তা দেবে বাংলাদেশ। আর বিদেশের মাটিতে টেস্ট খেলতে ভারত, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান সফর করবে টাইগাররা। এদিকে ২০২৫-২০২৭ চক্রে প্রায় দুই যুগ পর টেস্ট খেলতে অস্ট্রেলিয়া যাবে বাংলাদেশ। ২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল টাইগাররা। এই চক্রে অস্ট্রেলিয়া ছাড়াও দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কা সফর করবে বাংলাদেশ।

আর ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলবে টাইগাররা। নতুন এই এফটিপি নিয়ে সন্তুষ্ট বিসিবিও। বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন জানিয়েছেন, “২০২৩-২০২৭ এফটিপি বাংলাদেশের জন্য বেশ আনন্দের। সব ফরম্যাটেই আমরা সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে যথাযোগ্য ম্যাচ পেয়েছি।”

You May Also Like