অবশেষে বিপিএলের এবারের আসরের দিনক্ষন জানালো বিসিবি

বিপিএল হচ্ছে সব সম্ভবের আসর। যার শেষ বলে কিছু নেই। সেই শুরু থেকেই এ কথা প্রচলিত। কাজেই এবারও শেষ পর্যন্ত কি হবে? কোন কোন কর্পোরেট হাউজ অংশ নেবে, তা এখনই নিশ্চিত করে বলা কঠিন।

তবে এখনকার খবর, আগামী বছর জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে যে বিপিএলের আসর বসবে, তাতে বড় ও নামী ফ্র্যাঞ্চাইজি বলে প্রতিষ্ঠিত বেক্সিমকো এবং জেমকন গ্রুপ দল নিতে আগ্রহ দেখায়নি। জানা গেছে, এখন পর্যন্ত ৯টি কর্পোরেট হাউজ বিপিএলে দল নিতে আগ্রহী । তার মধ্যে আখতার গ্রুপ (চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স), বসুন্ধরা গ্রুপ (রংপুর রাইডার্স), প্রগতি গ্রুপ (সিলেট সানরাইজার্স), ফরচুন গ্রুপের (বরিশাল) মত পুরোন ফ্র্যাঞ্চাইজি দল কিনতে আগ্রহ দেখিয়েছে।

এছাড়া দুটি নতুন কর্পোরেট হাউজও আবেদন করেছে। সেখানে সাকিব আল হাসানের মোনার্ক মার্ট এবং মাইন্ড ট্রি নামের আরেকটি কর্পোরেট হাউজও আছে। এর পাশাপাশি আগ্রহী ফ্র্যাঞ্চাইজির তালিকায় তিনবারের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সও শেষ পর্যন্ত আবেদন জমা দিয়েছে। জানা গেছে, তারা ফ্র্যাঞ্চাইজি হওয়ার আবেদন করেছে নির্ধারিত সময়ের পর।

মোট কথা ৯টি কর্পোরেট হাউজ এখন পর্যন্ত আবেদন করেছে। সেখান থেকে ৭টি হাউজকে চূড়ান্ত করা হবে। কবে সেই নামগুলো প্রকাশ করা হবে এবং কারা কারা হবে বিপিএল ২০২৩-এর ফ্র্যাঞ্চাইজি? তা জানতেও ক্রিকেট অনুরাগীদের রাজ্যের আগ্রহ। তবে বিসিবির পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কোন আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেয়া হয়নি। ফ্র্যাঞ্চাইজি চূড়ান্ত করার ঘোষণা বহুদুরে, তার দিন তারিখও জানানো হয়নি।

আজ রোববার এসব নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন জানালেন, আমাদের যারা আবেদন করেছে, সেটা আইসিসির গাইডলাইন মেনে। এর মাঝে ২-১ জন নতুনও আছে। সে কারণে আমাদের যাচাই-বাছাইয়ের ব্যাপার আছে। তবে তিনি যোগ করেন, ‘এগুলো আমরা করে ফেলছি।’

বিসিবি সিইও আরও জানান,

এখন আসরের স্পন্সরশিপ নিয়েই মূলতঃ ব্যস্ত। তাই তার মুখে একথা, ‘অন্য যে প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলো আছে বিশেষ করে স্পন্সরশিপ, অন্যান্য বিষয়- এগুলো নিয়ে আমরা কাজ করছি। কাজ এগিয়ে যাচ্ছে।

আমরা হয়তো যখন একটা পূর্ণাঙ্গ বিষয় পাবো, তখন আপনাদের জানাতে পারবো।

You May Also Like