কেকেআরে সাকিবের ব্যাটিং পজিশন চুরান্ত

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের অন্যতম সেরা আসর ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৪তম আসরে পুরনো দলে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলতে ইতোমধ্যেই ভারতে পাড়ি জমিয়েছেন এই অলরাউন্ডার। সেখানে এক সপ্তাহ কোয়ারেন্টিন শেষে মাঠে নামবেন তিনি। তবে বাকি ক্রিকেটাররা ইতোমধ্যেই কোয়ারেন্টিন চুকিয়ে নেমে পড়েছেন ব্যাট-বল নিয়ে।

আগামী ৯ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া আইপিএলে কলকাতার নেতৃত্ব তুলে দেয়া হয়েছে ইংলিশ ক্রিকেটার ইয়ন মরগানের হাতে। আন্দ্রে রাসেল, সুনীল নারাইন কিংবা লকি ফার্গুসেনের মত তারকা বিদেশি ক্রিকেটার রয়েছেন শাহরুখ খানের এই দলে। এর আগে দলটির সহকারী কোচ জানিয়েছিলেন সাকিবকে দলে নেয়ার জন্য আগে থেকেই পরিকল্পনা ছিল তাদের।

দলের মিডল অর্ডারে ব্যাটিং বিভাগ শক্তিশালী করার পাশাপাশি সাকিবের বোলিংটা মিস করতে চায় না কলকাতা। এছাড়া বাংলাদেশের হয়ে তিন ফরম্যাটেই অধিনায়কত্ব করা সাকিবের অধিনায়কত্বের অভিজ্ঞতাটাও তাদের দলের জন্য কাজে লাগাতে চান বলে মন্তব্য করেছিলেন সহকারী কোচ। তবে এবার সাকিবকে নিয়ে কলকাতা অধিনায়ক ইয়ন মরগানও আশা প্রকাশ করেছেন।

class="tie-appear" src="https://i.imgur.com/Hjjwsnc.jpg" />

তিনি জানালেন সাকিবকে দলে নিয়ে ব্যাটিং অর্ডারে রদবদল করা হবে এই আসরে। মরগান বলেন, ‘’গত বছরের খেলা দেখে অনেকেই আমাদের ব্যাটিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলো। তবে আমার মতে আমাদের দলে ওপেনিং থেকে শুরু করে মিডল-অর্ডার প্রত্যেক জায়গায় একাধিক ম্যাচ জেতানো ক্রিকেটার রয়েছে।

দীনেশ কার্তিক, সুনীল নারাইন, আন্দ্রে রাসেল ও সাকিব আল হাসানকে পরিস্থিতি বিবেচনায় ব্যাটিংয়ে রদবদল করা হবে। সঙ্গে আছি আমি। তাই আমাদের দলে একাধিক ব্যাটসম্যান ছন্দে থাকলে বিপক্ষ দলের চিন্তা বাড়বে।‘বিশ্বকাপে সাকিব তিন নম্বরে খুব ভালো করেছে।’ একদিকে করোনা অন্যদিকে ক্রিকেটারদের ইনজুরি এসব কিহু মাথায় রেখেই দল সাজানো হয়েছে বলে জানান কেকেআর অধিনায়ক।

তার মতে দলে বেশ কয়েকজন ম্যাচজয়ী ক্রিকেটার রয়েছে। মরগান আরও বলেন, ‘’আইপিএল ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় টি-২০ প্রতিযোগিতা। এখানে প্রতিটা দল সমান শক্তিশালী। তবে এমন গরম ও পরপর একাধিক ম্যাচ থাকায় দলে ইনজুরি সমস্যা বাড়তে পারে। সেগুলো মাথায় রেখে দল গড়া হয়েছে।

আমাদের দলে বেশ কিছু ম্যাচ জেতানো ক্রিকেটার আছে এবং দল তাদের উপর বাড়তি নির্ভরশীল। কিন্তু সেই সাথে এমন কিছু ক্রিকেটার আছে যারা প্রয়োজনে নিজেদের মেলে ধরতে বদ্ধ পরিকর। তাই বিপক্ষ দল ও পিচ বিবেচনা করেই চূড়ান্ত একাদশ গড়া হবে।”

Related Post