বিশ্বরেকর্ড গড়তে চলেছেন মাহমুদউল্লাহ, ২০০৭-২০২১

২০০৭ সালের সেপ্টেম্বরে নাইরোবিতে কেনিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিলে টাইগারদের টি-টোয়েন্টির দলনেতা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের। এরপরে একে একে খেলে ফেলেছেন ৮৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ সংখ্যক কুড়ি ওভারের ম্যাচ খেলার রেকর্ড এই ক্রিকেটারের দখলে।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দেশসেরা ফিনিশার। বিগত কয়েক বছর ধরেই নিজের নামের প্রতি দারুণ আস্থা রেখে চলেছেন এই সংস্করণের ক্রিকেটে। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) বাংলাদেশের ৩য় ক্রিকেটার হিসাবে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ১৫০০ রানের মাইলফলকও স্পর্শ করেছেন তিনি। এবার মাহমুদউল্লাহ দাঁড়িয়ে আছেন আরও একটা রেকর্ডের দিকে।

২০১৫ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে এই পর্যন্ত মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাংলাদেশের হয়ে সবকটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলেছেন। এই সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের খেলা ৫৪ ম্যাচের সবকটিতে ছিলেন তিনি। অর্থাৎ মাহমুদউল্লাহ টানা ৫৪ ম্যাচ খেলেছেন। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩য় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ খেলার পর রিয়াদের এই সংখ্যাটা বেড়ে গিয়ে দাঁড়াবে ৫৫-তে। আর রিয়াদের সামনে এখন শুধু আসগর ও বেরিংটন। তারা দুজনই হোচট খেলে তাদের টপকে যাওয়া মাহমুদউল্লাহর সময়ের ব্যাপার।

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বাধিক টানা ৬১* ম্যাচ খেলার রেকর্ড আফগানিস্তান দলের আজগর আফগানের। এর পরের নামটি তারই সতীর্থ মোহাম্মদ শেহজাদের। এরপরের নামগুলো যথাক্রমে রিচি বেরিংটন (৫৬*), অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস (৫৫), সাইদ আজমল (৫৪), মাহমুদউল্লাহ (৫৪*)। এই রেকর্ডের পথে এগোতে থাকা খেলোয়াড়দের মধ্যে বর্তমান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের অবস্থান ৩ নম্বরে। ১৩ নভেম্বর ২০১৫ থেকে এই পর্যন্ত মিডল অর্ডারে ব্যাট করা ব্যাটসম্যানের মধ্যে ৫৪ ম্যাচ খেলে ২য় সর্বাধিক ১১২৬ রান করেছেন মাহমুদউল্লাহ।

তালিকায় সবার উপরে ১২৫৮ রান করে অবস্থান করছেন শোয়েব মালিক। মাহমুদউল্লাহর পরেই আছে যথাক্রমে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও এউইন মর্গানের নাম। শুধুমাত্র একজন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হিসাবেই নয়, এই সময়ের মধ্যে দেশের হয়ে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও মাহমুদউল্লাহ। ঠিক রিয়াদের পরেই আছে তামিম ইকবালের নাম। এই সময়ে ৩৯ ম্যাচে ১০২৪ রান করেছেন তামিম।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment