বাংলাদেশের কাছে ক্ষমা চাইলেন আম্পায়ার

নেপিয়ারে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ডাকওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে ১৬ ওভারে ১৪৮ রানের লক্ষ্য জেনে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। কিন্তু ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বদলে যায় লক্ষ্য। খেলা বন্ধ করে ফের হিসেব নিকেশ শুরু হয়। ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো জানান, জিততে হলে করতে হবে ১৭১ রান। ওই ১৬ ওভারেই। এমন ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ম্যাচ রেফারির সমালোচনা করেছেন অনেকেই।

কিউই অলরাউন্ডার জিমি নিশাম তো এমন কাণ্ডে রীতিমত ধুইয়ে দিয়েছেন দায়িত্বশীলদের। বাংলাদেশ ইনিংসে দেড় ওভার খেলা হওয়ার পর কিউই এই অলরাউন্ডার টুইট বার্তায় লিখেন, ‘কত লক্ষ্য সেটি না জেনেই কি করে রান তাড়া করা সম্ভব? নেহায়েত পাগলামি!’

তবে জানা গেছে এমন ঘটনার জন্য দুঃখপ্রকাশ করেছেন ম্যাচ রেফারি জেফ ক্রো। ম্যাচ চলাকালীন সময়েই বার বার এমন ঘটনার জন্য বাংলাদেশকে স্যরি বলেছেন তিনি। ম্যাচ শেষেও ক্ষমা চেয়ে নেন বলে জানিয়েছেননিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশ দলের টিম লিডার ও বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস।

দৈনিক প্রথম আলোকে মুঠোফোনে জালাল ইউনুস জানান, ‘জেফ ক্রো পরে বারবার আমাদের সরি বলেছেন। ম্যাচের পরও ঘটনার জন্য তিনি দুঃখ প্রকাশ করেছেন।’

এমন কান্ডে ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ কোচও ক্ষোভ ঝাড়েন। তিনি বলেন, ‘আমি এমন কোনো ম্যাচে আগে কখনো যুক্ত থাকিনি, যেখানে ব্যাটাররা নেমে গিয়েছে, অথচ তারা জানে না ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে লক্ষ্য কত। কেউই জানত না ৫ ওভার শেষে আমাদের কত দরকার কিংবা ৬ ওভারে শেষে কত দরকার (বৃষ্টিতে আবার ৫/৬ ওভারে খেলা বন্ধ হলে)। আমি এমন কোনো ম্যাচের অন্তর্ভুক্ত ছিলাম না যেখানে কেউ জানে না ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে লক্ষ্য কত। আমার মনে হয়, বিষয়টির সুরাহা হওয়া না পর্যন্ত খেলা শুরু করা উচিত হয়নি।’

Related Post