যার জন্য টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছে জানালেন মাশরাফি

যার জন্য টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিতে বাধ্য হয়েছে জানালেন মাশরাফি

সময়টা ২০১৭ সাল, শ্রীলঙ্কা সফরে ওয়ানডে সিরিজের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস করার সময় হুট করেই ঘোষণা এলো, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ছাড়ছেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। সেই সময় জানা যায়নি কেন হঠাৎ মাশরাফির এই অবসর। চারবছর বাদে বেসরকারি এক টেলিভিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে।

সেই সময় মাশরাফির অবসরের খবরে উত্তাল হয়ে পড়ে দেশের ক্রিকেটের সমর্থকেরা তবে মোটেও বিচলিত হতে দেখা যায়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)। মঙ্গলবার প্রকাশিত একাত্তর টেলিভিশনের সাক্ষাৎকারে মাশরাফি জানিয়েছেন তাকে অবসর নিতে বাধ্য করা হয়েছিল।

মাশরাফি বলেন, ‘ওই সফরে বোর্ডের সবাই উপস্থিত ছিল। কিন্তু আমি সহযোগিতা পাইনি কারো থেকে। ২০১১ বিশ্বকাপের আগে ডাক্তার ক্লিয়ারেন্স দেয়ার পরও আমাকে দলে নেয়া হয়নি। ২০১৭ সালে যখন অবসরে গেলাম তখন আমার পাশে কেউ ছিল না দেশের মানুষ ছাড়া।

আমি যখন শ্রীলঙ্কায় হোটেলে যাই, আমি তখনও ট্রাভেল স্যুটও খুলিনি তার আগেই আমার সঙ্গে বৈঠকে বসে। ওই বৈঠকের পরই আমি ভাবি যে, কিছু একটা গোলমাল আছে। কেন? টি-টোয়েন্টি সিরিজটা যখন আসলো তখন ভাবলাম, সবার বিপরীতে থাকার প্রয়োজন নাই।’

মাশরাফীর দাবি, শ্রীলঙ্কা সফরে টিম হোটেলে ওঠার পর তাকে সময়ও দেয়া হয়নি, ট্রাভেল টিশার্টটাও পরিবর্তন করার। অবস্থা এমন হয়েছিল, অবসর নিতে বাধ্য হয়েছিলেন ওই সময়ে।

‘আমি যখন শ্রীলঙ্কায় হোটেলে যাই, আমি তখনও ট্রাভেল স্যুটও খুলিনি তার আগেই আমার সঙ্গে বৈঠকে বসে। ওই বৈঠকের পরই আমি ভাবি যে, কিছু একটা গোলমাল আছে। কেন? টি-টোয়েন্টি সিরিজটা যখন আসলো তখন ভাবলাম, সবার বিপরীতে থাকার প্রয়োজন নাই।’

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment