১০০ কেজি পাঙ্গাস মাছ মিষ্টি কুমড়ো দিয়ে মজার রান্না করল একদল মহিলা, গ্রামের সবাইকে খাওয়াইল সেই খাবার, তুমুল ভাইরাল সেই ভিডিও..

বাঙ্গালীদের ঐতিহ্যের মধ্যে বিভিন্ন রকম ঐতিহ্যবাহী খাবার রয়েছে। আমরা বাঙালি মাত্রই ভোজন রসিক, বিশেষ করে গ্রাম গঞ্জের লোকাল যত খাবার আছে, বিভিন্ন পালা পার্বণ হোক অথবা মৌসুমী খাবার হিসেবে ,এসব খাবার একদম তুলনাহীন। স্বাদে, গন্ধে অনন্যা এসব খাবারমুখের রুচি যেমন ফিরিয়ে আনে, তেমনি বাঙালি হিসেবে আমাদের ঐতিহ্যকেও ধরে রাখে। তবে দিন দিন বাংলার ঐতিহ্যবাহী খাবার গুলো কোথায় যেন হারিয়ে যাচ্ছে। শহর এলাকাগুলোতে যদিও দেশীয় খাবারগুলো তেমন দেখা যায় না তবে গ্রাম্য এলাকায় মুরুব্বীরা এখনো এগুলো ধরে রেখেছে

আজকের এই ভিডিওটিতে একটি গ্রামের বিশাল ভাবে আয়োজন করা একটি খাবারের রেসিপি ধারণ করা হয়েছে। যেখানে গ্রামের এক মহিলা বিভিন্ন দেশীয় খাবারের আইটেম গ্রামের সবাইকে নিয়ে রান্না করে খাওয়া এবং তা ভিডিও করে ইউটিউব কিংবা বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করে। এই মহিলা প্রথমে ছোটখাটো ভাবে বিভিন্ন রেসিপি রান্না করে ইউটিউবে আপলোড করতো। পরবর্তীতে তিনি দেখতে পায় উনার ভিডিওগুলো ইউটিউবে প্রচুর পরিমাণে ভাইরাল হচ্ছে। পরে তিনি আস্তে আস্তে উনার আয়োজনগুলো বড় করতে থাকে।

বর্তমানে তিনি নতুন নতুন বিভিন্ন দেশেও আইটেম রান্না করে গ্রামবাসীদের নিয়ে খেয়ে থাকে। এবং প্রচুর পরিমাণে ভাইরাল হয় উনার এই ভিডিওগুলো। উনার এই মহান উদ্যোগের কারণে বিভিন্ন নেটিজেনদের মধ্যে প্রশংসিত হয়। চলুন দেরি না করে দেখে নেওয়া যাক আজকের এই রেসিপিটি তিনি কিভাবে রান্না করেছে এবং তাতে কি কি উপকরণ ব্যবহার করেছে।

উপকরন সমুহঃ, পাঙ্গাস মাছ, মিষ্টি কুমড়া, ভোজ্য তেল, পেঁয়াজ, রসুন, হলুদ, মরিচ, লবণ, ধনিয়া, প্রক্রিয়া করণঃ প্রথমে তিনি মাছগুলোকে ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নেয়। পড়ে তা ভালো করে ধৌত করে ডুবা তেলে ভালো করে ভেজে নেয়। এবং তার সাথে মিষ্টি কুমড়া গুলো একটু বড় আকারে কিউব আকৃতিতে কেটে নেয়।পেঁয়াজ এবং রসুন ভালো করে ব্লেন্ড করে নেয়।
ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

একটি বড় পাত্রে পরিমান মত তেল নিয়ে এরমধ্যে পর্যায়ক্রমে পেঁয়াজ, রসুন, হলুদ, মরিচ এবং ধনিয়া দিয়ে একটু নেড়েচেড়ে এর মধ্যে মিষ্টি কুমড়া টুকরোগুলো দিয়ে দেয়। মিষ্টি কুমড়ার টুকরোগুলোর সাথে মসলাগুলো নেড়েচেড়ে ভালো করে মিশিয়ে পরিমাণমতো কষিয়ে নেয়। পরে তা কিছু সময় ঢেকে রেখে এরমধ্যে পরিমাণমতো পানি দিয়ে দেয়। তারপর যখন পানি ভালো করে ফুটতে থাকে তখন এর মধ্যে ভেজে রাখা মাছের টুকরোগুলো দিয়ে দেয়। এভাবে কিছুক্ষণ চুলার মধ্যে বসিয়ে রাখলে রেসিপিটি সম্পূর্ণরূপে তৈরি হয়ে যায়।

আমরা বর্তমানে ইউটিউব কিংবা বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমের এরকম বিভিন্ন খাবারের রেসিপি তৈরির চিত্র দেখতে পাই। তবে আজকের এই ভিডিওটি একটু ভিন্ন রকমের। তিনি তার এই মহান উদ্যোগের মাধ্যমে উনার ভিডিও গুলো যেমন ইউটিউবে ভাইরাল হচ্ছে তেমনি তিনি তার গ্রামের গরীব দুঃখী মানুষদের এক বেলা ভালো করে খাওয়াতে পারছে। তিনি কিভাবে রান্না করে উনার গ্রামের মানুষদের নিয়ে খাবার গুলো উপভোগ করে তা দেখতে এই ভিডিওটি দেখার অনুরোধ রইলো।

You May Also Like

About the Author: