সাকিবের রেকর্ড ভেঙ্গে চুরমার করে দিলেন নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার!

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা ক্রিকেটার নিঃসন্দেহে সাকিব আল হাসান। অলরাউন্ডার হিসেবে সাকিব নিজের সময়কে তো ছাড়িয়েছেনই, সর্বকালের সেরার সংক্ষিপ্ত তালিকায়ও জায়গা করে নিয়েছেন। ক্রিকেটের অনেক রেকর্ডই লুটোপুটি খাচ্ছে তার পায়ে। যার মধ্যে এমন কিছু রেকর্ড আছে যেগুলো নেই আর কারও। তবে এবার তেমন একটা রেকর্ডে সাকিবের সঙ্গী হয়েছেন সোফি ডিভাইন।

টি-টোয়েন্টিতে ২ হাজার রান ও ১০০ উইকেট; এতদিন পর্যন্ত এই জোড়া অর্জন ছিল শুধুমাত্র একজন ক্রিকেটারের দখলে। হ্যাঁ, সাকিব ছাড়া আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে আর কেউই একই সঙ্গে ২ হাজার রান ও ১০০ উইকেটের মালিক হতে পারেননি এতদিন। এবার সাকিবের এই রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন এক ক্রিকেটার। পুরুষদের ক্রিকেটে না পারলেও এক প্রমীলা ক্রিকেটার দেখিয়েছেন এই অনন্য অলরাউন্ডিং পারফরম্যান্স। নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার সোফি ডিভাইন চলমান কমনওয়েলথ গেমসের ক্রিকেট ইভেন্টে এই রেকর্ড গড়েন।

রানের দিক থেকে আগেই ২ হাজার রানের গণ্ডি পেরিয়েছিলেন ডিভাইন। বাকি ছিল ১০০ উইকেটের মাইলফলক অর্জন। বার্মিংহামে চলমান কমনওয়েলথ গেমস ক্রিকেটে (শুধু মেয়েদের ইভেন্ট) দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেটাও পূর্ণ করে ফেলেন এই ৩২ বছর বয়সি ব্যাটিং অলরাউন্ডার। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ৩ উইকেট শিকার করে তিনি এখন ১০১ উইকেটের মালিক।

৯৯টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ব্যাট হাতে সাকিব আল হাসানের বর্তমান রান ২০১০। ১০টি অর্ধশতক হাঁকানো এই অলরাউন্ডার রান করেছেন ২৩.১০ গড়ে। টি-টোয়েন্টিতে সাকিবের স্ট্রাইকরেট ১২০.৮৬।

অন্যদিকে সোফি ডিভাইন ১০৩টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৩০ গড়ে রান করেছেন ২৬৪০। তার স্ট্রাইকরেট ১২৩.৬৫। ১৫টি অর্ধশতক হাঁকানো এই অলরাউন্ডারের আছে একটি শতকও।

বল হাতেও সাকিবের সঙ্গে ভালোই পাল্লা দিয়েছেন ডিভাইন। ৯৭ ইনিংস বল করে সাকিব উইকেট নিয়েছেন ১২১টি। ৫ বার নিয়েছেন ৪টি করে উইকেট। অন্যদিকে ডিভাইন ৯১ ইনিংসে বল করে ১০১ উইকেট শিকার করেছেন। তার অবশ্য ৪ উইকেট পাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছে একবারই।

You May Also Like

About the Author: