করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি, আইপিএল হবে তো?

করোনাভাইরাসের কারণে গেল বছরের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আসর বসেছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতে। তাও আবার শূন্য গ্যালারিতে। এবার মৌসুম ঘরেই আয়োজন করার কথা। প্রাথমিকভাবে দর্শক নিয়েই মাঠে গড়ানোর চিন্তা ছিল জনপ্রিয় এই টুর্নামেন্ট। হুট করেই সংক্রমণ বেড়েছে ভারতে। তাই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।

আগামী ৯ এপ্রিল শুরু হয়ে ৩০ মে পর্যন্ত আইপিএল আয়োজনের চিন্তা রয়েছে। এরই মধ্যে খেলোয়াড় নিলামও সম্পন্ন হয়েছে। দেয়া হয়েছে সূচি।

করোনাভাইরাসে বলি হয়েছেন এই পর্যন্ত ১৫ লাখ ৯ হাজারের বেশি মানুষ। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১৪ লাখ ৩৮ হাজারের বেশি। গেল এক সপ্তাহে প্রতিদিনই ২০ হাজার করে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন।

এদিকে বিনু মানকাদ ট্রফিসহ সব রকম বয়সভিত্তিক ক্রিকেট প্রতিযোগিতা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিসিসিআই) জানিয়েছে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) আয়োজনের মূল্যায়ন করা হবে।

বুধবার এক বিবৃতিতে বিসিসিআইয়ের সচিব জয় শাহ জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বর্তমানে বিভিন্ন বয়সের প্রতিযোগিতা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হলো।

‘অতিমারীর কারণে ভারতে লকডাউন পরিস্থিতিতে ২০২০-২১ সালের ঘরোয়া মৌসুমে দেরিতে শুরু হয়। মৌসুম ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছিল। তারই ধারাবিহিকতায় বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্টগুলো আয়োজনের চেষ্টা চলছিল। তকে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় টুর্নামেন্ট স্থগিত করতে বাধ্য হচ্ছি। প্রতিযোগিতার খেলোয়াড়দের বিভিন্ন প্রদেশ থেকে চলাচল করতে হবে। যা তাদের জন্য স্বাস্থ্যসম্মত নয়।’

বিসিসিআইয়ের সচিব জয় শাহ আরও বলেন, ‘বর্তমানে কয়েকটি রাজ্যে পরিস্থিতি অনুকূল নয়। দশম ও দ্বাদশ বোর্ডের পরীক্ষাও পুরো ভারত জুড়ে রয়েছে এই বিষয়টি বিবেচনা করে আমাদের যুব অ্যাথলেটদের এই গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষাগুলেরা জন্যে প্রস্তুতির সুযোগ পাবে। আমাদের খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্য, সুরক্ষা এবং সুস্বাস্থ্যই আমাদের প্রাথমিক বিষয়।’

আইপিএলের পর বয়সভিত্তিক ক্রিকেট টুর্নামেন্টগুলো আয়োজনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সংশ্লিষ্ট খবর

Leave a Comment