টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ১৬ দলের সেরা সাফল্যে বাংলাদেশের কি সাফল্য?

আগামী ১৩ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়ায় বসতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অষ্টম আসর। বাকি আর আড়াই মাসের মতো। তার আগে চলুন দেখে নেয়া যাক এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে যাওয়া ১৬ দলের সেরা সাফল্য কী।

নামিবিয়া
নামিবিয়া ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথমবার অংশগ্রহণ করে। প্রথম আসরেই তারা সুপার টোয়েলভে খেলার কৃতিত্ব দেখায়। সুপার টোয়েলভের পাঁচ ম্যাচে মাত্র একটি জয় পায় তারা।

স্কটল্যান্ড
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যাত্রা শুরু ২০০৭ সালে। প্রথম আসরেই স্কটল্যান্ড অংশগ্রহণ করে। তাদের সেরা সাফল্যটি আসে গত বিশ্বকাপে। প্রথম রাউন্ডে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে তারা অংশ নেয় সুপার টোয়েলভে। যদিও সেখানে কোনো জয় পায়নি তারা।

শ্রীলঙ্কা
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রতিটি টুর্নামেন্টেই খেলেছে শ্রীলঙ্কা। লঙ্কানদের সেরা সাফল্যটি আসে ২০১৪ সালের আসরে। সেবার ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা ঘরে তোলে তারা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ
শ্রীলঙ্কার মতো ওয়েস্ট ইন্ডিজও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সাতটি আসরে খেলেছে। এ প্রতিযোগিতায় ২০১২ সালের আসরে শ্রীলঙ্কাকে ও ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে তারা দুবার চ্যাম্পিয়ন হয়।

আয়ারল্যান্ড
এখন পর্যন্ত ছয়বার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলে আয়ারল্যান্ডের সেরা সাফল্য সুপার টোয়েলভে অংশগ্রহণ।

নেদারল্যান্ডস
চারবার অংশগ্রহণ করে নেদারল্যান্ডসের সেরা সাফল্য সুপার টোয়েলভ।

সংযুক্ত আরব আমিরাত
সংযুক্ত আরব আমিরাত এখন পর্যন্ত দুবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছে। যেখানে গ্রুপপর্বই তাদের সেরা সাফল্য হয়ে আছে।

জিম্বাবুয়ে
পাঁচ আসরে জিম্বাবুয়ের সেরা সাফল্য গ্রুপপর্ব।

আফগানিস্তান
আফগানরা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছে চারবার। ২০১৬ সালের আসরে তারা অংশ নিয়েছে সেরা দশে। যেখানে চার ম্যাচের মধ্যে মাত্র একটিতে জয় পায় তারা।

অস্ট্রেলিয়া
সাতবার বিশ্বকাপ খেলে একবার শিরোপা জিতেছে অজিরা।

বাংলাদেশ
টাইগাররা এখন পর্যন্ত সব কটি আসরেই অংশ নিয়েছে। সাত আসরে তাদের সেরা সাফল্য দ্বিতীয় পর্ব।

ইংল্যান্ড
ইংলিশরা সাত আসরের মধ্যে ২০১০ সালের আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়। সেবার তারা ফাইনালে জয় পায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

ভারত
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম আসরেই চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তারা হারায় পাকিস্তানকে।

নিউজিল্যান্ড
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ২০২১ সালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারে নিউজিল্যান্ড। সাত আসরে এটাই তাদের সর্বোচ্চ অর্জন।

পাকিস্তান
পাকিস্তান ২০০৯ সালের আসরে চ্যাম্পিয়ন হয়।

দক্ষিণ আফ্রিকা
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা অর্জন দুবার সেমিফাইনালিস্ট হওয়া।

You May Also Like

About the Author: