মাত্র পাওয়াঃ উইন্ডিজের কাছে ২য় টি-২০ হারায় সবাসরি দলের যাদের দুষলেন মাহমুদউল্লাহ

স্বাগতিকদের ১৯৩ রানের বিশাল সংগ্রহের জবাব দিতে নেমে বাংলাদেশ শুরুতে আবারও ভুগল। ৮ রানে বিদায় দুই ওপেনার। পরে হাল ধরতে পারেনি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ, নুরুল হাসানরাও। তবে

বাংলাদেশের আসল সর্বনাশটা হয়েছে তার আগেই। বাংলাদেশি বোলারদের কচুকাটা করে ১৯৩ রান তোলেন রভম্যান পাওয়েল, ব্রেন্ডন কিংরা। ম্যাচটা হাত থেকে ফসকে গেছে সেখানেই। ম্যাচ শেষে ‘অপরিকল্পীত বোলিংকে’ দুষলেন মাহমুদউল্লাহ।

বড় সংগ্রহের জবাব দিতে নেমে সাকিব আল হাসান দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন। ৫২ বলে ৬৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন। তার সঙ্গে আফিফ হোসেন ধ্রুবর চতুর্থ উইকেট জুটিটা জমে উঠেছিল বেশ। কিন্তু আফিফ ২৭ বলে ৩৪ রান করে আউট হলে গতিটা আর ধরে রাখতে পারেননি বাকিরা। শেষ পর্যন্ত সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩৫ রানের পরাজয়।

ম্যাচ শেষে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘সাকিব খুবই ভালো ব্যাটিং করেছে। তবে বোলিংয়ে সম্ভবত আমরা কয়েকটা ওভারে বেশি রান দিয়ে ফেলেছি। আফিফ–সাকিবের জুটিটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল, যেটা আমাদের একটা মোমেন্টাম দিয়েছিল। শেষ দিকে সাকিব পরপর কয়েকটা বাউন্ডারি মারল। তারপরও বোলিংটা যদি আমরা আরেকটু ভালো করতে পারতাম, লক্ষ্যটা যদি আরেকটু কম হতো তাহলে হয়তো আমাদের জন্য ভালো হতো।’

পরিকল্পনা মতে বোলিং করতে না পারার হতাশা ফুটে উঠল বাংলাদেশ অধিনায়কের কণ্ঠে, ‘আমরা যেখানে বল করতে চেয়েছি, সেখানে বল করতে পারিনি। পরিকল্পনা অনুয়ায়ী বোলিং হয়নি।’

বড় স্কোরের জবাব দিতে হলে শুরুটা ভালো হওয়া জরুরী। বাংলাদেশ সেখানে পুরো ব্যর্থ। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা লিটন দাস ওপেনিংয়ে নেমে ৫ রান করে ফিরেছেন। বারবার ব্যাটিং পজিশন পরিবর্তন করা লিটন দাস অনেকদিন পর নেমেছিলেন ওপেনিংয়ে।

ম্যাচ শেষে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘১৯০ রান যখন তাড়া করবেন তখন ভালো একটা শুরু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ওখানেই আমরা কিছুটা পিছিয়ে পড়ি। লিটন আমাদের সেরা ব্যাটসম্যান। আপনি সবসময় চাইবেন আপনার সেরা ব্যাটসম্যানকে সমর্থন দিতে। লিটন টেস্ট, ওয়ানডেতে খুবই ভালো ব্যাটিং করছে, ধারাবাহিকতা ধরে রেখে খেলছে। টি–টোয়েন্টিতে হয়তো সেটা পারছে না। তবে সে আমাদের সেরা ব্যাটস্যাম্যান। টি–টোয়েন্টিতে যে কোনো ব্যাটসম্যানের যে কোনো জায়গায় ব্যাটিং করার সামর্থ্য থাকতে হবে এবং লিটনের সেটা আছে।’

তামিম ইকবালহীন ওপেনিং জুটিতে কিছুতেই সাফল্য মিলছে না। যেটা বড় দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের সামনে। মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘যেহেতু ওপেনিংয়ে আমরা ধারাবাহিক পারফরম্যান্স পাচ্ছি না সে জন্য একটু অদল–বদল অনেক সময় হতেই পারে। আমার মনে হয় দল হিসাবে আমরা ভালো খেলতে পারছি না। সেটারই প্রভাব পড়ছে সবকিছুতে।’

You May Also Like

About the Author: