১টি কারনে শরিফুলের কপাল খুলে গেলো, পাপন এর দ্বারা সব সম্ভব

দক্ষিণ আফ্রিকার পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনজুরির কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে টেস্ট দলের বাইরে ছিলেন শরিফুল ইসলাম। রিহ্যাব শেষে সুস্থ হয়ে উঠেছিলেন, রঙিন পোশাকের সিরিজের জন্য দেশের মাঠে পূর্ণ ছন্দে প্রস্তুতিও শুরু করেছিলেন তিনি।

অ্যান্টিগা টেস্ট শেষ হওয়ার দিন আচমকাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ফোন এই বাঁহাতি পেসারের কাছে। উদ্দেশ্য, উইন্ডিজদের বিপক্ষে সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় টেস্টের দলে সুযোগ দেওয়া হয়েছে শরিফুলকে। সেই ফোনের একদিন পরেই আজ (২০ জুন) সন্ধ্যায় দ্বীপরাষ্ট্রটির উদ্দেশে উড়াল দিচ্ছেন টাইগার এই পেসার।

ক্যারিবীয়ান দেশটির উদ্দেশে উড়াল দেওয়ার আগে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হোন শরিফুল। যেখানে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, ইনজুরি থেকে ফিরে উইন্ডিজ সিরিজের দলে খেলার জন্য কোনো মানসিক প্রস্তুতি ছিল কি না। তার উত্তরে শরিফুল জানিয়েছেন, আগের দিন সভাপতির ফোনের পর অন্যকিছু আর ভাবেননি তিনি।

গণমাধ্যমে বলেন, ‘গতকাল রাতে পাপন স্যার কল দিয়ে বলছিল, আমি যাব… এই।’

এই বাঁহাতি পেসার আরও যোগ করেন উইন্ডিজে টেস্ট খেলার ইচ্ছা ছিল তার। শরিফুলের ভাষ্যে, ‘অবশ্যই এক্সাইটিং (উইন্ডিজে যাওয়া)। আমার খুব ইচ্ছা ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট খেলার, এখন যাচ্ছি দেখা যাক যাওয়ার পর কি হয়।’

ইনজুরি থেকে পুরোপুরিভাবে ফিরেছেন এবং ফিরতে পেরে ভালো লাগছে জানিয়ে শরিফুল আরও যোগ করেন, ‘ভালো ফিল হচ্ছে, মনে হচ্ছে ভালো অবস্থানে আছি। ইনজুরির পরে কষ্ট লাগে রিহ্যাবে থাকতে। কারণ, সবাই চায় যে খেলার মধ্যে থাকতে, কোনো একটা ম্যাচ মিস করলে সবারই কষ্ট করলে, সেখান থেকে ফিরলে ভালো লাগে।’

এদিকে উইন্ডিজে অ্যান্টিগায় প্রথম টেস্টের পর অধিনায়ক সাকিবের প্রশংসা মিলেছে পেসারদের। এটা নিজেদের আরও ভালো করতে সহায়তা করবে জানিয়ে শরিফুল বলেন, ‘যারা ভালো করে তাদের নিয়ে ক্যাপ্টেন যদি কিছু বলে, সাকিব ভাইয়ের মতো বড় ভাইয়েরা কিছু বলে নিজের জন্য উৎসাহ পাওয়া যায়। আর সেখানে উইকেট থেকে হেল্প পাওয়া যায়। আমরা চেষ্টা করবো লাইন-লেন্থ মেন্টেন করে বল করার।’

অ্যান্টিগায় প্রথম টেস্টে ৭ উইকেটে হেরে দুই ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। আগামী ২৪ জুন সেন্ট লুসিয়ায় দ্বিতীয় টেস্টে মাঠে নামবে দুই দল। ২০২১ সালের এপ্রিলে অভিষেক হওয়ার পর থেকে দেশের পক্ষে ৪টি টেস্ট খেলেছেন শরিফুল।

You May Also Like

About the Author: