এশিয়া কাপ আয়োজনে এসিসির ভাবনায় বাংলাদেশ!

ভয়াবহ আর্থিক সংকটের কারণে শঙ্কা তৈরি হয়েছে শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠেয় এশিয়া কাপ নিয়ে। দেশটির পরিস্থিতি আরও অবনতি হলে আয়োজক দেশ পরিবর্তন করবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)। যেখানে এবারের এশিয়া কাপের আয়োজক হিসেবে দেখা যেতে পারে বাংলাদেশকে। এমনটাই জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ক্রিকেটডটকম।

এশিয়া কাপ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসতে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ফাইনালের দিন। এখনও কোনো কিছু চূড়ান্ত না হলেও ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের দাবি, শ্রীলঙ্কা এশিয়া কাপ আয়োজন করতে না পারলে বাংলাদেশে টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চায় এসিসি। আরব আমিরাতের নাম উঠে আসলেও সেখানে টুর্নামেন্ট আয়োজন করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন এসিসির এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গে এসিসির এক কর্মকর্তা বলেন, ‘এই মুহূর্তে বাংলাদেশ কেবলই একটি অপশন এবং চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসার আগে এসিসি শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। আগষ্টের শেষ দিকে এবং সেপ্টেম্বরের শুরুতে আরব আমিরাতে ম্যাচ আয়োজনের বিকল্প নয়। ’

করোনার থাবায় ২০২০ সালের এশিয়া কাপ পিছিয়ে দেয়া হয় এক বছর। কিন্তু বছর পেরিয়েও নির্ধারিত সময়ে আশার আলো দেখতে ব্যর্থ হয় টুর্নামেন্টটি। কারণ সেই করোনাভাইরাসই! মরণব্যাধি এই ভাইরাসের কারণে পরবর্তীতে আরও এক বছর পিছিয়ে দেয়া হয় এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব লড়াইয়ের এই টুর্নামেন্টটি।

২০২২ সালে পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হওয়ায় এশিয়া কাপ নিয়ে ইতিবাচক পথেই হাঁটছিল এসিসি। তবে আবারও অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে হচ্ছে এশিয়া কাপকে। এবার অবশ্য কারণ করোনাভাইরাস নয়, বরং আয়োজক দেশের ভয়াবহ আর্থিক সংকট।২৭ আগস্ট থেকে শ্রীলঙ্কায় পর্দা ওঠার কথা এশিয়া কাপের। কিন্তু আয়োজক দেশটি ভয়াবহ আর্থিক সংকটে পড়েছে ।

১৯৪৮ সালে স্বাধীনতার পর এবারই সবচেয়ে কঠিন সংকটের মোকাবেলা করতে হচ্ছে ভারত মহাসাগরের দ্বীপ দেশটিকে। শ্রীলঙ্কার জনগণ এখন ভয়াবহ মুদ্রাস্ফীতি, জ্বালানি সংকট, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের ঘাটতি ও উচ্চমূ্ল্য, দিনে দীর্ঘসময়ের লোডশেডিংয়ে নাকাল। তাতেই শ্রীলঙ্কাতে এশিয়া কাপ আয়োজন নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

You May Also Like

About the Author: