মুশফিকদের ধীরগতির ব্যাটিংয়ের কারণ জানালেন মুমিনুল

image 2022 05 19 200732941

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন মন্থর গতিতে ব্যাটিং করতে থাকেন মুশফিকুর রহিম এবং লিটন দাস। তাদের এমন ধীরগতির ব্যাটিংয়ের কিছুটা মাশুল দিতে হয় বাংলাদেশকে। শেষদিনে তেমন সুবিধাই করতে পারেনি লাল সবুজের দল। ম্যাচটি নিষ্প্রাণ ড্র’য়ের পর মুশফিকদের ধীরগতির ব্যাটিং নিয়ে মুখ খুলেছেন মুমিনুল হক।

চতুর্থ দিনে টেস্ট ক্রিকেটে ব্যক্তিগত পাঁচ হাজার রান থেকে ১৫ রান দূরে থেকে দিন শুরু করেন মুশফিক। এই ১৫ রান করতেই ৪৮ বল খেলে ফেলেন তিনি। উইকেটরক্ষক ব্যাটার লিটন তার চাইতে কিছুটা প্রাঞ্জল থাকলেও তৃতীয় দিনের তুলনায় ধীরগতিতে ব্যাট চালাচ্ছিলেন তিনিও।

সেদিন প্রথম সেশনে ২৭ ওভার ব্যাটিং করে বাংলাদেশ তোলে ৬৭ রান। লাঞ্চের পর অবশ্য মারতে গিয়েই সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন লিটন। ৮৮ রানে ফিরে যান তিনি। এরপরের বলেই বোল্ড হন তামিম ইকবালও।

এদিকে মুশফিক অবশ্য সেঞ্চুরি করেই ছাড়েন। যদিও এই সেঞ্চুরি পেতে ২৭০টি বল খেলেন তিনি। মুশফিকের ধীরগতির এই সেঞ্চুরিতে ছিল মাত্র চারটি চারের মার। মুমিনুলের যুক্তি, এই উইকেটে রয়েসয়ে খেলাই শ্রেয় ছিল ব্যাটারদের কাছে। কেননা জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের উইকেটে আগ্রাসী খেলতে গেলেই আউট হতে হতো ব্যাটারদের।

ম্যাচ শেষে মুমিনুল বলেন, ‘যদি পাঁচদিন আপনি খেলা দেখেন। ওদের ব্যাটিংও দেখেন, আমাদের ব্যাটিংও যদি দেখেন। এই উইকেট এমন উইকেট ছিল আপনি টিকে থাকতে পারবেন। কিন্তু একটু বেশি যদি এক্সালারেট করতে যান তাহলে হয়ত উইকেট পড়ার সুযোগ বেশি থাকবে। যেটা আমার কাছে মনে হয়।’

‘ওই সময়ে লিটন যদি আউট না হতে তাহলে হয়ত আমরা সুযোগটা নিতে পারতাম। ওই সময় দুই তিনটা উইকেট পড়ে গেল। তামিম ভাই আউট হলো, লিটন আউট হলো। লিটন যদি মুশফিক ভাইয়ের সঙ্গে এক ঘন্টা খেলতে পারত তাহলে আমরা অন্যরকম কিছু করতে পারতাম। আপনি যেটা বলছেন এটা সত্যি কিন্তু বেশি মারতে গেলে আউট হওয়ার ঝুঁকি থাকে।’

এদিকে লম্বা সময় ধরেই অফ-ফর্মে আছেন মুমিনুল। চট্টগ্রাম টেস্টে খেলা একমাত্র ইনিংসে করেছেন মাত্র ২ রান। যদিও নিজের অফফর্ম নিয়ে একেবারেই চিন্তিত নন মুমিনুল।

তিনি বলেন, ‘সবাই যেহেতু রানের মধ্যে আছে, সবাই যেহেতু দল হয়ে খেলতে পেরেছে ব্যাটিং হোক বোলিং হোক আমি আগেও বলেছি বাংলাদেশ ভালো খেলে দল হিসেবে খেললে। বিষয়টা কাজে দিবে (ঢাকায়)। আর আমার বিষয়টা আমি আমার ব্যাটিং নিয়ে হয়তো… সত্যি কথা অতো চিন্তিত না। সত্যি কথা অতো বেশি চিন্তিত না

You May Also Like