কলকাতায় খেলার যোগ্যতা হারালো কোলকাতা, বৃথা গেলো রিংকুর চার-ছক্কার তান্ডব!

Untitled 127

এ বারের আইপিএলে ১৪ ম্যাচ খেলে কলকাতার সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট। কোনও ভাবেই প্লে-অফের দরজা খোলা সম্ভব নয় শ্রেয়সদের পক্ষে। শেষ কলকাতার যাত্রা। লখনউ সুপার জায়ান্টসের বিরুদ্ধে ২ রানে হার কলকাতা নাইট রাইডার্সের।

এ বারের আইপিএল থেকে বিদায় ঘটল শ্রেয়স আয়ারদের। শুরুতেই পিচটা বুঝে নিয়েছিলেন দুই অধিনায়ক। তাই টস জিতে লোকেশ রাহুল ব্যাটিং নেওয়ার কথা জানালেন আর শ্রেয়স আয়ার বললেন, তিনিও ব্যাটিংই নিতেন। ব্যাট করতে নেমে ওপেনিং জুটিতে রেকর্ড গড়লেন লোকেশ রাহুল এবং কুইন্টন ডি’কক। কলকাতার বোলারদের নিয়ে ছিনিমিনি খেললেন দুই ওপেনার। কোনও উইকেটই ফেলতে পারলেন না উমেশ যাদবরা।

বিনা উইকেটে ২১০ রান তুলে নিল লখনউ। ৫৯ বলে শতরান করলেন ডি’কক। ইনিংস শেষ করেন ১৪০ রানে অপরাজিত থেকে। অন্য দিকে রাহুল অপরাজিত রইলেন ৬৮ রানে। ডি’ককের ইনিংস সাজানো ছিল ১০টি চার এবং ১০টি ছয় দিয়ে। রাহুল মারেন চারটি ছয় এবং তিনটি চার। কলকাতার বোলারদের মধ্যে সব থেকে বেশি রান দিলেন টিম সাউদি। ৪ ওভার বল করে ৫৭ রান দেন কিউই পেসার। তিন ওভার বল করে ৪৯ রান দেন রাসেল।

রান তাড়া করতে নেমে প্রথম ওভারেই শূন্য রানে ফিরে যান বেঙ্কটেশ আয়ার। অন্য ওপেনার অভিজিৎ তোমরের এটাই ছিল অভিষেক ম্যাচ। সেই ম্যাচে তিনি করলেন মাত্র চার রান। নীতীশ রানা চেষ্টা করেছিলেন রান তাড়া করার। কিন্তু কৃষ্ণাপ্পা গৌতম তাঁকে ফিরিয়ে দেন। ২২ বলে ৪২ রান করে আউট নীতীশ। শ্রেয়স আয়ার ২৯ বলে ৫০ রান করে উইকেট হারান।

You May Also Like