কাঙ্খিত সেঞ্চুরি উদযাপন করলেন তামিম

ঢাকা : টেস্ট ক্রিকেটে তামিম ইকবাল আর মুশফিকুর রহিমের মধ্যে যেন ইঁদুর-বিড়াল খেলা চলছে। টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রানের দৌড়ে পাল্লা দিয়ে ছুঁটছেন এই দুইজন। কখনো মুশফিককে ছাড়িয়ে শীর্ষে তামিম, কখনো আবার তামিমকে টপকে সবার ওপরে উঠছেন মুশফিক। এবার আবার সতীর্থ মুশফিককে পিছনে ফেলে চূড়ায় উঠলেন বাঁহাতি ব্যাটিং ওপেনার।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট ৪৮৪৮ রানে শুরু করেন তামিম। মুশফিকের সংগ্রহে আছে ৪৯৩২ রান। দলের হয়ে নিজেদের প্রথম ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নেমে দারুণ শুরু পেয়েছেন তামিম। ব্যক্তিগত সংগ্রহ যখন ৮৫ রান ছাড়িয়েছে, তখনই মুশফিকে পিছনে ফেললেন তিনি। এখন অপরাজিত আছেন ৮৯ রানে। তামিম কতক্ষণ শীর্ষস্থান ধরে রাখে সেটিই এখন দেখার বিষয়।

কেনান চট্টগ্রাম টেস্টে এখনো ব্যাট হাতে না নামা মুশফিকের সামনেও সুযোগ থাকছে এই ম্যাচেই তামিমকে টপকে আবার চূড়া দখলে নেওয়ার। যেভাবে হাত ধরাধরি করে দৌড়াচ্ছেন দুইজন, তাতে তাদের এই শীর্ষে ওঠার ইঁদুর-বিড়াল খেলা সহসা শেষ হচ্ছে না।

এর আগে চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন সকালে তামিম ও জয়ের অর্ধশতকে দারুণ শুরু করলো বাংলাদেশ। আগের দিন ৩৫ রানে অপরাজিত থাকা তামিম এদিন প্রথম পাঁচ ওভারের মধ্যে নিজের অর্ধশতক পূর্ণ করেন।

তৃতীয় দিন সকালে আগের দিনের সঙ্গে ১৫ রান করতে ২১ বল খেলেন তামিম। প্রথম ওভারে রমেশ মেন্ডিসের ওভার থেকে নেন ৩ রান। পরের ওভারে ভিশ্ব ফার্নান্দোকে দুই চার হাঁকান। পরের ওভারে অবশ্য মেডেন দেন এই ব্যাটসম্যান। পরের ওভারে ১ রান নেওয়া তামিম মেন্ডিসের করা দিনের পঞ্চম ওভারের প্রথম বলে চার হাঁকিয়ে অর্ধশতক পূর্ণ করেন।

সবমিলিয়ে ৭৩ বলে ৭ চারে অর্ধশতক পূর্ণ করেন তামিম। এটা তামিমের ক্যারিয়ারের ৩২ তম অর্ধশতক। ফিফটিতে টেস্ট ক্যারিয়ারে ৪৯০০ রান পূর্ণ করেছেন। অপেক্ষা আর ১০০ রানের। তামিমের পর নিজের দ্বিতীয় অর্ধশতক পূর্ণ করেন জয়। ১১০ বলে নিজের দ্বিতীয় অর্ধশতক পূর্ণ করেন।

এর আগে তৃতীয় দিন সকালে ৬১ ইনিংস পর ওপেনিংয়ে শতরানের জুটি গড়েছে দুই টাইগার ওপেনার তামিম ও জয়। আগের দিনের ৭৬ রানের সঙ্গে সকালে আরও ২৮ রান যোগ করেন জয় ও তামিম। যেখানে তামিমের ব্যাট থেকে আসে ২২ রান এবং জয় যোগ করেন ৫ রান। পাঁচ বছর পর টেস্টে শতরানের ওপেনিং জুটি দেখলো বাংলাদেশ। এই জুটি ১৫৭ রানে অপরাজিত থেকে লাঞ্চ বিরতীতে গেছেন। মধ্যহ্নভোজের পর ব্যক্তিগত কোন রান না যোগ করে ফিরেই ৫৮ রানে ফিরে যান জয়। এতে ১৬২ রানের রেকর্ড জুটি ভাঙে বাংলাদেশের।

তবে নিজের আরও একটি কাঙ্খিত সেঞ্চুরি উদযাপন করে তামিম। এটি তার ১০তম সেঞ্চুরি। ১৬২ বলে ১২ চার হাঁকিয়ে এই সেঞ্চুরি করেন তামিম।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৭২ রান। তামিম ১০২ ও শান্তু ১ রানে অপরাজিত আছেন।

এদিকে ওপেনিংয়ে টাইগারদের পক্ষে নতুন রেকর্ড গড়লেন তামিম ইকবাল এবং মাহমুদুল হাসান জয়। টেস্ট ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে ওপেনিংয়ে সর্বোচ্চ রানের জুটি এখন তামিম-জয়ের। চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন সকালে তামিম-জয় ভাঙলেন তামিম ও ইমরুল কায়েসের ১২ বছরের রেকর্ড। ২০১০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যানচেস্টারে রেকর্ডটি গড়েছিলেন তামিম-ইমরুল।

সে ম্যাচে টসে জিতে আগে ব্যাট করে ইংল্যান্ড। এরপর ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথমবারের মতো ব্যাটিং করতে নামে বাংলাদেশ। প্রথম উইকেটে তামিম ও ইমরুল মিলে তোলেন ১২৬ রান। সে ম্যাচে শতকের দেখা পেয়েছিলেন তামিম।

এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৯৭ রান করে শ্রীলঙ্কা।

You May Also Like

About the Author: